মঙ্গলবার ১৯ ডিসেম্বর, ২০১৭, রাত ০২:২৯

যে ভাবে বিয়ে হয় শাকিব-অপুর

Published : 2017-04-18 09:28:00, Updated : 2017-04-18 11:19:38

অনলাইন ডেস্ক : চিত্রনায়ক শাকিব খানের সঙ্গে অপু বিশ্বাসের বন্ধুত্বের সম্পর্ক পরিণয়ে গড়ায় বিয়ের মাধ্যমে।বিয়ের পর তাদের একটি ছেলেও রয়েছে। ১০ এপ্রিল সোমবার একটি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলকে অপু নিজে এ কথা জানান।এরপর শাকিব নিজেও শিকার করছেন স্ত্রী-সন্তানের কথা।অপু বিশ্বাস বলেন, ২০০৮ সালে ১৮ এপ্রিল তাঁদের বিয়ে হয়। শাকিবের ঢাকার বাসায় এই বিয়ে হয়।

আবার সেই বিয়ের কথা জনালের চলচ্চিত্রের প্রযোজনা ব্যবস্থাপক মামুনুজ্জামান মামুন।একটি জাতীয় দৈনিকের সঙ্গে আলাপকালে জানান শাকিব-অপু বিয়ের অজানা কথা।

সংবাদ মাধ্যমকে তিনি জানান, বিয়ের আগের দিন অপুর জন্য শাকিব একটি হীরার সেট আর একটি লেহেঙ্গা কিনেছিলেন। গুলশানে শাকিবের বাসায় বিয়ের ব্যবস্থা করা হয়। তাদের বিয়েটা হয়েছিল আসরের নামাজের ঠিক আগে। বিয়েতে উপস্থিত ছিলেন অপু ও তাঁর বোন লতা। অপুর উকিল বাবা হিসেবে কাবিননামায় স্বাক্ষর করেন মামুনুজ্জামান মামুন। অপুর পক্ষে স্বাক্ষর করেন লতা, আর শাকিবের চাচাতো ভাই মনির স্বাক্ষর করেন তাঁর পক্ষে। বিয়ের দেনমোহর ছিল বড় অঙ্কের। বিয়ের ঘণ্টা দুয়েক পর অপু ও লতা তাঁদের বাসায় চলে যান।

শাকিব আর অপুর বিয়ের জন্য কাজি আনা হয় ফরিদপুর থেকে। কাজির নাম মজিবুর রহমান।বিয়েতে দুই পরিবারের তেমন কেউ উপস্থিত না থাকলেও ওই দিন রাতেই সবাই তা জেনে যান।শাকিব আর অপুর বাবা-মা বিষয়টি মানতে চাননি। মাস তিনেক পর মামুনুজ্জামান মামুনের মধ্যস্থতায় সব কিছু স্বাভাবিক হয়।

এরপর অপু শাকিবের বাসায় আসা-যাওয়া শুরু করেন। শুটিং না থাকলে অপু সন্তানসম্ভবা হওয়ার আগ পর্যন্ত শাকিবের বাসায় নিয়মিত থাকতেন। অন্যদিকে শাকিবও অপুর বাসায় যাওয়া-আসা করতেন।

মামুনুজ্জামান মামুন বলেন, মিরপুর শাহ আলী মাজার রোডের একটি বাসায় থাকতেন অপু। তখন তাদের কথা ছিল, বিয়ের সংবাদ গোপন থাকবে। একসময় বড় অনুষ্ঠান করে সবাইকে জানানো হবে।বিয়ের পুরো বিষয়টি জানতেন অপুর মেজ বোন লতা আর শাকিবের চাচাতো ভাই মনির।

মঙ্গলবার শাকিব খান ও অপু বিশ্বাসের নবম বিয়েবার্ষিকীতে আছেন দুজন দই জায়গায়। রংবাজ ছবির শুটিং এর জন্য শাকিব খান আছেন পাবনায়। আর ছেলে আব্রাহাম খান জয়কে নিয়ে অপু আছেন ঢাকার বাসায়।