বৃহস্পতিবার ২৪ আগস্ট, ২০১৭, রাত ০৩:৩২

বাংলাদেশে এসে ফরাসি পর্যটক নিখোঁজ

Published : 2017-04-15 23:12:00, Count : 2757
নিজস্ব প্রতিবেদক: ফরাসি পর্যটক আর্থার অ্যানজেস বাংলাদেশে এসে প্রায় তিন মাস ধরে নিখোঁজ। গত জানুয়ারির শেষদিকে ঢাকায় অবস্থানকালে আর্থারের সঙ্গে শেষ যোগাযোগ হয় তার পরিবারের। এরপর থেকে তার সঙ্গে আর যোগাযোগ হয়নি পরিবারের সদস্যদের।
আর্থারের এক স্বজন মায়েভা স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমকে জানান, আর্থার সাইকেলে বিশ্বভ্রমণের উদ্দেশ্যে তিন বছর আগে বের হয়। গত ২৬ জানুয়ারি ঢাকাতে অবস্থানকালে সর্বশেষ তার সঙ্গে ইমেইলে পরিবারের সদস্যদের যোগাযোগ
হয়। গত ২২ জানুয়ারি খুলনা ও ১৩ থেকে ২১ জানুয়ারির মধ্যে আর্থার চট্টগ্রামে অবস্থান করে। ২৬ জানুয়ারির পর থেকে আর্থারের সঙ্গে আর যোগাযোগ হচ্ছে না। মায়েভা আরও বলেন, ২৬ জানুয়ারির শেষ ইমেইল বার্তায় সে ভিসা ছাড়া মিয়ানমার পাড়ি দেবে বলেও জানায়। একই বার্তায় ফেব্রুয়ারির শুরুতে মালয়েশিয়াতে এক বন্ধুর সঙ্গে সাক্ষাতের কথা উল্লেখ করা হয়। কিন্তু আর্থার মালয়েশিয়া যায়নি বলে তিনি নিশ্চিত করেন।
তিনি আরও বলেন, আর্থার বাংলাদেশ ও ভারতের উত্তরাঞ্চল দিয়ে অথবা বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চল হয়ে মিয়ানমারে যাওয়ার পরিকল্পনা করেছিল কি না সে বিষয়ে তারা নিশ্চিত নন। এর আগে সে ভারত ভ্রমণ করে বাংলাদেশে আসে।
আর্থারের পরিবার ও বন্ধুদের আশঙ্কা, সে বাংলাদেশ থেকে ভারত হয়ে মিয়ানমারে প্রবেশকালে কোনো দেশের নিরাপত্তা বাহিনীর হাতে গ্রেফতার হতে পারে।
আর্থারের খোঁজ পেতে ফেসবুকে https://www.facebook.com/arthurmissing/ নামে একটি পেইজ খোলা হয়েছে। সেখানে আর্থার সম্পর্কে প্রাথমিক তথ্যাদি ও টেলিফোন নম্বর দিয়ে তার বিষয়ে খোঁজ পেলে যোগাযোগ করতে বলা হয়।
স্বজনদের দেওয়া তথ্যমতে, আর্থারের ফরাসি পাসপোর্ট নাম্বর 15FV01536 । সে মোবাইল ফোন ব্যবহার করে না। পরিবার ও বন্ধুদের সঙ্গে ইমেইলে যোগাযোগ করে। মায়েভা বলেন, তারা সব দেশের দূতাবাসে যোগাযোগ করেছেন। কিন্তু কেউ আর্থার সম্পর্কে কোনো তথ্য দিতে পারেনি।
গত রাতে ঢাকার ফরাসি দূতাবাসের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তারা সকালের খবরকে আর্থারের নিখোঁজের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলে, এই নম্বরটি (যে নাম্বারে কল করা হয়) মূলত বাংলাদেশে অবস্থানকারী ফরাসি নাগরিকদের জরুরি সহায়তার জন্য। তবে তারা আর্থারকে খুঁজে পেতে চেষ্টা করছে। এছাড়া অফিস চলাকালীন দূতাবাসে গিয়ে আর্থারের বিষয়ে তথ্য সংগ্রহের কথা জানানো হয়।  
এ বিষয়ে ঢাকা মহানগর পুলিশের উপকমিশনার (মিডিয়া) মাসুদুর রহমানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি সকালের খবরকে জানান, আমরা ফরাসি নাগরিক নিখোঁজের বিষয়টি জেনেছি। তাকে খুঁজে বের করার চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।