বুধবার ১৭ জানুয়ারি, ২০১৮, সন্ধ্যা ০৭:১৮

আলোচনা-সমালোচনায় যে তারকারা

Published : 2017-04-12 15:42:00, Updated : 2017-04-12 18:47:38

অনলাইন ডেস্ক : ক্রিকেট ও বিনােদন জগতের ৪ জন তারকা নারী কেলেঙ্কারিতে জড়িয়েছেন। জেলও খেটেছেন ২ জন। একজন চাপে পড়ে শিকার করেছেন তার কেলেঙ্কারির কথা।

হ্যাপীর মামলায় রুবেল গ্রেফতার

২০১৫ সালের ৮ জানুয়ারি অভিনেত্রী নাজনীন আক্তার হ্যাপির দায়ের করা ধর্ষণ মামলায় জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করে জাতীয় ক্রিকেট দলের পেসার রুবেল হোসেনকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

২০১৪ সালে ১৩ ডিসেম্বর ধর্ষণের অভিযোগে ক্রিকেটার রুবেল হোসেনের বিরুদ্ধে রাজধানীর মিরপুর মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন চিত্রনায়িকা নাজনীন আক্তার হ্যাপি। মামলার অভিযোগ করা হয়, ক্রিকেটার রুবেল হোসেন বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ইচ্ছার বিরুদ্ধে একাধিকবার হ্যাপির সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করেন।এরপর রুবেলকে গ্রেফতার করা হয়। পরে তিনি জামিন পান।

মামলার নথি সুত্রে জানা গেছে, আসামি রুবেল হোসেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের একজন খেলোয়ার। ফেসবুকের মাধ্যমে তাদের পরিচয় ও বন্ধুপূর্ন সম্পর্ক গড়ে ওঠে। মামলার তদন্তকালে রুবেলের বাসার দারোয়ানকে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, রুবেলের বাসায় শুধু নাজনীন আক্তার হ্যাপী নন তার অসংখ্য ভক্ত অনুরাগী সাংবাদিক মিডিয়া ব্যক্তিত্ব থেকে শুরু করে অনেকেই যাতায়াত করত। এছাড়া বাদীকে ডাক্তরী পরীক্ষায় মেডিকেল বোর্ড জানায় সম্প্রতি হ্যাপীর শরীরে কোথাও জোড় পূর্বক ধর্ষণের চিহৃ পাওয়া যায়নি।

 

তবে হ্যাপি একজন প্রাপ্তবয়স্ক, মিডিয়াতে কাজ করা সচেতন ও আধুনিক একজন ব্যক্তি। তিনি প্রাপ্তবয়স্ক হওয়া সত্ত্বেও বিবাহ নামক সম্পর্ক ছাড়া যদি রুবেলের সঙ্গে মেলামেশা করে থাকেন তাহলে সেটা তার (বাদী) সম্মতিসহ হয়ে থাকতে পারে। কিন্তু ধর্ষণের সংজ্ঞানুযায়ী জোড়পূর্বক বিবাহের প্রলোভন দিয়া তাহাকে ধর্ষণ করা হইয়াছে বলিয়া অভিযোগ দায়ের করেছে তাহা সঠিক নয় মর্মে প্রথমিকভাবে প্রতীয়মান হয়েছে। তাই আসামি রুবেলকে মামলার দায় ইইতে অব্যাহতির দানের প্রার্থনা করা হল।

নাসরিনের মামলায় সানি গ্রেফতার

অবৈধ বোলিং অ্যাকশনের জন্য নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে দলে ফেরার অপেক্ষায় থাকা স্পিনার আরাফাত সানিকে ২২ জানুয়ারি গ্রেফতার করা হয়। সাবেক বান্ধবী নাসরিন সুলতানা করা  তথ্যপ্রযুক্তি আইনের মামলায় এই তারকা ক্রিকেটারকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। প্রাথমিকভাবে জানা গেছে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সাবেক বান্ধবীর অনুমতি ছাড়াই বেশ কিছু ছবি আপলোড করেছেন সানি। এছাড়াও তার বিরুদ্ধে সেই বান্ধবীর ইনবক্সেও আপত্তিকর বক্তব্যের অভিযোগও রয়েছে। ৯ মে আরাফাত সানি জামিন পান।

৩০ বছরের সানি বাংলাদেশ জাতীয় দলের হয়ে ১৬টি ওয়ানডে ও ১০টি টি-টুয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন। গেল বছরের গোড়ায় ভারতে অনুষ্ঠিত টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপ চলাকালে অবৈধ বোলিং অ্যাকশনের জন্য আইসিসি তাকে নিষিদ্ধ করেছিল। এরপর অ্যাকশন শুধরে ঘরোয়া ক্রিকেটে ফিরলেও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এখনো ফিরতে পারেননি সানি।

শাকিব খান ও অপু বিশ্বাস

নায়িকা অপু বিশ্বাস জানিয়েছেন, তাঁর একটি ছেলেসন্তান রয়েছে। সেই সন্তানের বাবা বাংলা চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় নায়ক শাকিব খান।

সোমবার(১০ এপ্রিল)বিকেলে অপু বিশ্বাস একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলের সরাসরি সম্প্রচারিত অনুষ্ঠানে এ দাবি করেন। এরপর শাকিব খান তা মেনে নেন। তিনি জানান ছেলের দায়িত্ব তিনি নিবেন।সবশেষ তারা বলেছে, তাদের মধ্যে ভুল ভুঝাবুঝির সৃষ্টি হয়েছে।

অপু বলেন, ‘শাকিবের সঙ্গে আমার বিয়ে হয়েছিল ২০০৮ সালের ১৮ এপ্রিল। বিয়ের সময় আমার নাম পরিবর্তন করা হয়েছিল। আমার নাম রাখা হয়েছিল অপু ইসলাম খান। বিয়ের সময় শাকিবের ভাই ও একজন প্রযোজক উপস্থিত ছিলেন।’

‘বাচ্চা নিয়ে আমাকে অনেক সংগ্রাম করতে হয়েছে। আমি দীর্ঘদিন আড়ালে ছিলাম। পাঁচ মাস হয় ঢাকায় এসেছি। দীর্ঘ নয় মাস আমি কলকাতা, ব্যাংকক ও সিঙ্গাপুরে ছিলাম’, বলেন অপু বিশ্বাস। অপু বিশ্বাস জানান, ২০১৬ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর তাঁর ছেলের জন্ম হয়। নাম রাখা হয়েছে আব্রাহাম খান জয়। তিনি বলেন, ‘শাকিব যদি এই অনুষ্ঠান দেখে থাকে তবে ওর (শাকিবের) দায়িত্ব হবে দূর থেকে ওকে (ছেলেকে) আদর করে দেওয়া। বাবা হয়ে আমার ছেলেকে যেন না ঠকায়।

মাহির মামলা শাওনের বিরুদ্ধে

২০১৬ সালের ২৮ মে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের সাইবার ক্রাইম শাখায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন নায়িকা মাহি। অভিযোগটি তিনি করেন স্বামী দাবিদার শাওনের বিরুদ্ধে। ওই অভিযোগের ভিত্তিতেই শাওনকে গ্রেপ্তার করে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ। গ্রেপ্তারের সময় গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ শাওনের দক্ষিণ বাড্ডার বাসা থেকে কম্পিউটার জব্দ করে।

নায়িকা মাহিয়া মাহির সঙ্গে ব্যবসায়ী পারভেজ মাহমুদ অপুর বিয়ের পরের দিন থেকেই কয়েকটি গণমাধ্যমে মাহির ‘একাধিক বিয়ে-সংক্রান্ত’ কিছু ছবি প্রকাশ হতে থাকে। সেখানে ছবি প্রকাশের পাশাপাশি দাবি করা হয়, এর আগেও একাধিকবার মাহির বিয়ে হয়েছে।

ছবি প্রকাশের পর থেকে আলোচনার ঝড় ওঠে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে। বিষয়টি নজরে এলে নায়িকা মাহি বলেন, তিনি আইনের আশ্রয় নেবেন। তিনি গণমাধ্যমকে বলেন, ‘আমার সংসার ভাঙার জন্য কেউ আমার পিছু লেগেছে।’

গ্রেপ্তার হওয়া শাওনের বাবা নজরুল ইসলাম গুলশানের একজন ব্যবসায়ী। শাওন স্টামফোর্ড ইউনিভার্সিটিতে ফিল্ম অ্যান্ড মিডিয়া বিভাগে প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী। তিনি দাবি করেন, নায়িকা মাহি তাঁর ভালো বন্ধু ছিলেন। ফেসবুকে মাহির সঙ্গে অনেক ছবিও পোস্ট করেন শাওন।