মঙ্গলবার ২৩ জানুয়ারি, ২০১৮, দুপুর ০২:০৭

মমতার তিস্তার বিকল্প প্রস্তাবে কী আছে?

Published : 2017-04-09 10:07:00, Updated : 2017-04-09 15:12:51

অনলাইন ডেস্ক: : তিস্তা চুক্তির ব্যাপারে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেছেন তাদের আমলেই এ চুক্তি হবে। তবে ধরে নেয়া যায় ২০১৮ সালের মধ্যই এ চুক্তি হবার সম্ভাবনা আছে।কিন্ত পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি তিস্তা চুক্তির এখনও কোন গ্রিন সিগনাল দেননি।শনিবার(৮ এপ্রিল) রাতে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে একান্ত বৈঠকে তিস্তা নিয়ে জটিলতা কাটাতে বিকল্প প্রস্তাব দিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী।

নদীর পানি-বণ্টনের বিকল্প প্রস্তাব দিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে তিনি বলেন, আপনার তো জল দরকার। তোর্সা ও আরও যে দুইটি নদী উত্তরবঙ্গ থেকে বাংলাদেশে গিয়েছে, তার জলের ভাগ ঠিক করতে দুইদেশ কমিটি গড়ুক। শুকনো তিস্তার জল দেওয়াটা সত্যিই সমস্যার।

তিস্তার পানির বিপরীতে পশ্চিমবঙ্গ থেকে বাংলাদেশে বিদ্যুৎ পাঠানোর প্রস্তাবও দিয়েছেন মমতা। তিনি জানিয়েছেন, ১০০০ মেগাওয়াট পর্যন্ত বিদ্যুৎ বাংলাদেশকে দিতে পারে পশ্চিমবঙ্গ। বিদ্যুৎ নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই প্রস্তাব শুনে সন্তোষ প্রকাশ করে নরেন্দ্র মোদি বলেছেন, ‘সরকারিভাবে এই প্রস্তাব দিন, আমি দেখছি কী করা যায়।

শনিবার এক সংবাদ সম্মেলনে মমতা ব্যানার্জি বলেছেন, তিস্তায় পানির অভাবে এনটিপিসির বিদ্যুৎকেন্দ্র বন্ধ হয়ে গেছে। আশেপাশের জেলাগুলোতে সেচের জন্য পানি পেতে সমস্যা হয়। কিন্তু উত্তরবঙ্গে তোর্সা, জলঢাকাসহ চারটি নদী আছে, যেখানে পানির প্রবাহ ভালো বলে উল্লেখ করেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী।
ফলে তিস্তার বিকল্প হিসেবে এই চারটি নদীর পানি ব্যবহারের প্রস্তাব দিয়েছেন তিনি। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভারত সফরের আগেই জানা গিয়েছিলো তিস্তা চুক্তি হচ্ছে না। মূলত মমতা ব্যানার্জির আপত্তির কারণেই এই চুক্তি করা সম্ভব হচ্ছে না অনেক দিন যাবত।

কিন্তু এবারের সফরে শেখ হাসিনার সাথে মমতা ব্যানার্জি আলাদা করে বৈঠক করেছেন এবং ঐ বিকল্প প্রস্তাব দিয়েছেন।এর আগে দুই দেশের প্রধানমন্ত্রীর যৌথ সংবাদ সম্মেলনে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেছিলেন, তার সরকারের মেয়াদের মধ্যেই তিস্তা চুক্তি হবে।বিশ্লেষকেরা বলছেন, এই প্রস্তাবের মাধ্যমে মমতা ব্যানার্জির পূর্বের অবস্থান বদলে নমনীয়তার কিছুটা ইংগিত পাওয়া যাচ্ছে।
 

বিবিসি, ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস, আনন্দবাজার পত্রিকা