রবিবার ২১ জানুয়ারি, ২০১৮, রাত ০৪:৪৬

পুরো দক্ষিণ এশিয়ার উন্নয়নে বিশ্বাস করে বাংলাদেশ : শেখ হাসিনা

Published : 2017-04-08 14:24:00, Updated : 2017-04-08 20:17:33

অনলাইন ডেস্ক: : ভারতের নয়া দিল্লির হায়দরাবাদ হাউসে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে শীর্ষ বৈঠক করেছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।শনিবার (৮ এপ্রিল) দুপুরে বৈঠকটি শুরু হয়। শেখ হাসিনা প্রেস ব্রিফিংয়ে বলেন, বাংলাদেশ-ভারত এর সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্কের ফলে শুধু দুই দেশের মানুষই নয়, পুরো দক্ষিণ এশিয়ার মানুষই উপকৃত হবে। তিস্তার বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন,  এ বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। শিগগিরই তিস্তার সমস্যার সমাধান হবে। দিল্লিতে 'বঙ্গবন্ধু সড়ক' উদ্বোধন করার জন্য-নরেন্দ্র মোদিকে ধন্যবাদ জানান তিনি।

বঙ্গবন্ধুর আত্মজীবনীর হিন্দি অনুবাদের কথা টেনে তিনি বলেন, এই বইটির হিন্দি অনুবাদের জন্য আমি ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে বিশেষ ধন্যবাদ জানাচ্ছি। একই সঙ্গে ধন্যবাদ জানাচ্ছি ভারতের একটি রাস্তার নাম বঙ্গবন্ধুর নামে করার জন্য।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের সময় ভারতের সঙ্গে বন্ধুত্ব পূর্ণ সম্পর্ক শুরু হয়েছিলো। সে জন্য আমরা সব সময় ভারতের কাছে কৃতজ্ঞ। যারা শহীদ হয়েছিলেন তাদেরকে আমরা সম্মান দিতে পারছি এটি আমাদের জন্যই সম্মানের।

এর আগে বৈঠক ও চুক্তি সইয়ের পর আনুষ্ঠানিক ব্রিফিংয়ে অংশ নেন দুই প্রধানমন্ত্রী। তার আগে হিন্দি ভাষায় অনূদিত বঙ্গবন্ধুর আত্মজীবনীর মোড়ক উন্মোচন করেন হাসিনা ও মোদি।

এরপর দুই প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতিতে চারটি চুক্তি বিনিময় করেন এতে স্বাক্ষর করা প্রতিনিধিরা।বিনিময় হওয়া চারটি চুক্তি হলো- তৃতীয় দফা ‍ঋণ সহায়তা (এলওসি) ৪.৫ বিলিয়ন ডলার, দ্বিপাক্ষিক বিচার বিভাগীয় সহযোগিতা, আউটার স্পেসের শান্তিপূর্ণ ব্যবহার ও পেসেঞ্জার ক্রু সার্ভিস প্রটোকল আইন।

এরপর বেলা ১টায় হায়দ্রাবাদ হাউজের ব্যাংকোয়েট হলে নরেন্দ্র মোদীর মধ্যাহ্নভোজে যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী। বিকাল সাড়ে ৩টায় মানেক শ সেন্টারে মুক্তিযুদ্ধে ভারতীয় সশস্ত্র বাহিনীর শহীদদের সম্মাননা অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন তিনি। সাত শহীদ পরিবারের সদস্যের হাতে মুক্তিযুদ্ধ সম্মাননা তুলে দেবেন তিনি। সেখানে মোদীরও বক্তব্য দেওয়ার কথা রয়েছে।সন্ধ্যা ৬টায় মাওলানা আজাদ এভিনিউয়ে ভারতের উপরাষ্ট্রপতি হামিদ আনসারির সঙ্গে সাক্ষাৎ হবে শেখ হাসিনার।