সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, সকাল ০৮:১৫

পাকিস্তানকে সেনাক্যাম্পে হামলার খেসারত দিতে হবে: ভারত

Published : 2018-02-13 17:47:00

অনলাইন ডেস্ক : জম্মুর সুনঞ্জুয়ান সেনাক্যাম্পে হামলার জন্য পাকিস্তানকে খেসারত দিতে হবে। ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সীতারামন জম্মু ও কাশ্মীরের মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতির সঙ্গে সাক্ষাতের পর এক সংবাদ সম্মেলনে মঙ্গলবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) এমন মন্তব্য করেছেন।

সীতারামন বলেছেন, ওই সন্ত্রাসীরা জইশ-ই-মোহাম্মদের সদস্য ছিল। তারা সম্ভবত স্থানীয় জঙ্গিগোষ্ঠীর কাছ থেকেও সহায়তা নিয়েছে। তিনি আরো বলেন, "পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে আমি নির্দিষ্ট কোনো সময়সীমা উল্লেখ করছি না। কিন্তু তাদের এ অপরিণামদর্শী আচরণের জন্য অবশ্যই খেসারত দিতে হবে।"

এদিকে পাকিস্তান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ভারতীয় কর্মকর্তাদের দায়িত্বজ্ঞানহীন বিবৃতি এবং ভিত্তিহীন অভিযোগ দায়েরের কথা এখন সবাই জানে। সেখানে কিছু হলে কোনো ধরনের তদন্ত ছাড়াই তারা বিবৃতি দিয়ে বসে।

পরে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেন, অবশ্যই পাকিস্তানকে হামলার তথ্যপ্রমাণ দেয়া হবে। কিন্তু তারা কোনো ব্যবস্থা না নিয়ে হাজারও কাগজপত্র আমাদের সরবরাহ করবে। মুম্বাই হামলার অনেক অপরাধীর তথ্য আমরা পাকিস্তানকে দিয়েছিলাম। কিন্তু তাদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। তারা এখন নির্বিঘ্নে ঘুরে বেড়াচ্ছে।

উল্লেখ্য, শনিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) ভোরে জম্মু-কাশ্মিরের সুঞ্জওয়ানের সেনা ক্যাম্পের আবাসিক এলাকায় হামলা চালানোর পর একটি ভবনে ঢুকে পড়ে হামলাকারীরা। পরে তাদের ঘিরে সেনা ও পুলিশ ও প্যারামিলিটারি সদস্যরা অভিযান শুরু করে। ৩০ ঘণ্টা পর ওই অভিযান শেষ হয়। ওই ঘটনায় পাঁচ সেনা সদস্য, এক বেসামরিক ব্যক্তি ও তিন হামলাকারী নিহত হয়।

এ হামলাকে কেন্দ্র ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে নতুন করে উত্তেজনা শুরু হয়েছে। ভারতের দাবি, পাকিস্তানভিত্তিক সন্ত্রাসী গোষ্ঠী জইশ-এ-মোহাম্মদ এই হামলা চালিয়েছে। অপরদিকে পূর্ণাঙ্গ তদন্ত হওয়ার আগেই মন্তব্য করার জন্য ভারতের সমালোচনা করেছে পাকিস্তান। সূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া, এনডিটিভি