রবিবার ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, দুপুর ০২:৫২

যে কারণে জাপানি রাজকুমারীর বিয়ে পেছাচ্ছে

Published : 2018-02-07 10:46:00

অনলাইন ডেস্ক : জাপানের সম্রাট আকিহিতোর নাতনি রাজকুমারী মাকো এবং  সাধারণ পরিবারের সন্তান কেই কোমুরোর বিয়ে হওয়ার কথা ছিল চলতি বছরের নভেম্বরে। তাদের প্রেম কাহিনী বহুল আলোচিত। কিন্তু এই বিয়ে এখন ২০২০ সাল পর্যন্ত স্থগিত রাখা হচ্ছে।

রাজপরিবারের কর্মকর্তারা মঙ্গলবার (৬ ফেব্রুয়ারি) এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, ২০২০ সালের আগে তাঁরা বিয়ে হচ্ছে না। বিয়ের প্রস্তুতির জন্য অনেক সময় লাগবে। সেজন্যেই পিছিয়ে দেয়া হয়েছে অনুষ্ঠানটি।

রাজকুমারী মাকোর বয়স এখন ২৬ বছর। তার প্রেমিক কেই কোমুরো কাজ করেন একটি ল' ফার্মে। এই প্রেমিক যুগলের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, যথেষ্ট প্রস্তুতির অভাবেই তারা বিয়ের অনুষ্ঠান পিছিয়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

সামনের বছর জাপানের রাজা আকিহিতো সিংহাসন ছেড়ে দিচ্ছেন। তিনি আগেই এই ঘোষণা দিয়েছিলেন। গত দুশো বছরের ইতিহাসে এই প্রথম কোন সম্রাট সিংহাসন ছাড়ছেন।
এ বিষয়টি নিয়ে রাজপরিবারকে অনেক ব্যস্ত থাকতে হবে। এটা হয়তো বিয়ের অনুষ্ঠান পিছিয়ে দেয়ার একটা কারণ বলে ধারণা করা হচ্ছে।  

চলতি বছরের মার্চে বাগদান এবং নভেম্বরে বিয়ে হওয়া হওয়ার কথা ছিল রাজকন্যার। মাকোর সম্ভাব্য এই বিয়েটি বর্তমান বিশ্বের আলোচিত একটি বিষয়। কারণ, মাকোর হবু বর রাজপরিবারের সদস্য না হওয়ার কারণে মাকোকে রাজপরিবার ছাড়তে হচ্ছে।

জাপানের রাজপরিবারের তরফ থেকে বলা হচ্ছে সম্রাট আকিহিতো অবসরে যাওয়ার পর তাঁর ছেলে যুবরাজ নারুহিতো সিংহাসনে আরোহনের আনুষ্ঠানিকতা শেষ হলে তাদের বিয়ে হবে। জাপানের একটি ম্যাগাজিনে এই মর্মে খবর বেরিয়েছিল রাজকুমারী মাকো' প্রেমিক কোমুরোর মা কিছু আর্থিক ঝামেলায় জড়িয়ে পড়েছেন। সেটাই বিয়ে পেছানোর কারণ। কিন্তু রাজপরিবারের তরফ থেকে এই খবর অস্বীকার করা হয়েছে।

রাজপরিবারের নিয়ম অনুসারে, বিয়ের পরপরই মাকো হারাবেন তাঁর রাজকীয় উপাধি। তাঁর জীবনে আসবে নাটকীয় সব পরিবর্তন। স্বামীর সঙ্গে রাজপরিবার থেকে দূরে কোনো স্থানে বসবাস করতে হবে। তবে রাজকন্যা এককালীন কিছু অর্থ পাবেন, যা নিজেদের ভরণপোষণের কাজে লাগাতে পারবেন। তাঁকে সাধারণ নাগরিকদের মতো ভোট দিতে হবে এবং কর পরিশোধ করতে হবে। দোকানে যাওয়া, টুকিটাকি কেনাকাটাসহ নিজের কাজ নিজেকেই করতে হবে। আর এই দম্পতির সন্তানেরা রাজপরিবারের সদস্য হিসেবে বিবেচিত হবে না। সূত্র: বিবিসি, সিএনএন