রবিবার ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, দুপুর ০২:৫৯

আদালতের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের একটি অংশ দুর্নীতিতে জড়িয়ে পড়েছেন : অ্যাটর্নি জেনারেল

Published : 2018-02-04 16:05:00, Updated : 2018-02-04 16:17:59
ফাইল ছবি

অনলাইন ডেস্ক : আদালতের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের ভেতরে একটি বিরাট অংশ ইতিমধ্যে দুর্নীতির সঙ্গে জড়িয়ে পড়েছেন। যারা এখনোও সৎ আছেন এভাবে চলতে থাকলে তাদের পক্ষেও সততা বজায় রাখা কঠিন হবে।এসব কথা বলেছেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। রোববার (৪ ফেব্রুয়ারি) নতুন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনকে দেয়া সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

মাহবুবে আলম বলেন, যারা এখনো সৎ আছেন এভাবে চলতে থাকলে তাদের পক্ষেও সততা বজায় রাখা কঠিন হবে।সবচেয়ে ভয়াবহ যে বিষয়টি, তা হলো বিশেষ বিশেষ কোর্টের, বিশেষ বিশেষ আইনজীবীর কোর্ট হয়ে গেছে এবং অনেক সময় অনেক সিনিয়র অ্যাডভোকেটের কাছ থেকে ব্রিফ নিয়ে তাদেরকে নিয়োগদান করা হচ্ছে।

অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, বিচারপ্রার্থী ব্যক্তিরা অনেকে জেনে গেছেন, কোন কোর্টে কাকে নিয়ে গেলে মামলা জেতা যাবে। এটাতো ন্যায়বিচারের সম্পূর্ণ পরিপন্থী। এ বিষযে অনেকেই ছুটছেন বিচারপতিদের সন্তান, স্ত্রী যারা আইনজীবী হিসেবে নিয়োজিত আছেন তাদের দিকে।তাদের চিন্তা হলে, এদেরকে নিয়ে গেলে হয়ত মামলায় জেতা যাবে। বিচারপতিদের আত্মীয় বা সন্তানরা আগেও এ পেশায় ছিলেন, কিন্তু কখনো এরূপ অবস্থার সৃষ্টি হয়নি, এখন কেন বিচারপ্রার্থীদের আচরণ এরূপ হচ্ছে তা খতিয়ে দেখা দরকার।

নতুন নিয়োগ পাওয়া প্রধান বিচারপতিকে উদ্দেশ্য করে রাষ্ট্রের প্রধান আইন কর্মকর্তা বলেন, সংবিধানের বিধানমত আপনি ২০২১ সনের শেষ দিন পর্যন্ত প্রধান বিচারপতির পদে আসীন থাকবেন।এ সময়টা একটি দীর্ঘ সময়, প্রায় চার বছর।আমাদের বিচার বিভাগের বর্তমানের যে অবস্থা, আপনার এই সময়কালে তাতে আপনি আমূল পরিবর্তন আনতে পারেন, যদি এ বিষয়ে আপনি দৃঢ়ভাবে বিভিন্ন পদক্ষেপ নেন।