সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, সকাল ০৮:০৭

মিডিয়া থেকে হারিয়ে গেছেন তিন্নি

Published : 2018-01-30 11:07:00, Updated : 2018-01-30 11:38:15

অনলাইন ডেস্ক : ছোট পর্দার জনপ্রিয় মডেল-অভিনেত্রী শ্রাবস্তী দত্ত তিন্নি।অভিনয় করে জনপ্রিয়তা অর্জন করেছিল।পারিবারিক কিছু ঘটনার পর তিনি মিডিয়া থেকে দূরে ছিলেন।এখন তিনি স্থায়ীভাবে কানাডায় বসবাস করছেন। সেখানে মেয়ে আরিশাকে নিয়ে ভালো কাটছে তার সময়। মেয়ে আরিশাকে সেখানকার স্কুলে ভর্তি করিয়েছেন। মা-মেয়ে দু’জনই বেশ ভালো সময় পার করছেন।

তাদের সেসব সুন্দর মুহূর্তের ছবি নিজের ফেসবুক ওয়ালেও পোস্ট করতে ভুলছেন না তিন্নি। তবে তিন্নি যদি সেখানে স্থায়ী হন তাহলে কি মিডিয়াকে বিদায় জানাচ্ছেন? তিনি কি আর ফিরবেন না? তার সাবলীল অভিনয়-পারফরমেন্স কি আর দেখবেন না দর্শক? তিন্নি উত্তরে সরাসরি ‘হ্যাঁ’ কিংবা ‘না’ বললেও জানালেন, আসলে আমি এসব নিয়ে এখন ভাবছি না। আমি আমার মেয়ে আরিশাকে নিয়েই কেবল ভাবছি।

তিন্নি বলেন, আমার জীবন এখন আরিশানির্ভর। আমি আরিশাকে নিয়ে বাকিটা জীবন ভালো থাকতে চাই। আসলে সংসারতো করতে চেয়েছিলাম। কিন্তু সেট হলো না। এটা অবশ্য ভাগ্যের বিষয়। আমি এর জন্য অনেক হতাশাগ্রস্ত তাও না। কারণ, প্রত্যেকটি মানুষের জীবনের গল্প আলাদা। আমারটাও আলাদা হবে সেটাই স্বাভাবিক। হতে পারে আর ১০টা মেয়ের মতো আমি স্বামী-সংসারসহ জীবনটা কাটাতে পারছি না। কিন্তু তাতে আফসোস নেই আমার। কারণ আমার বেঁচে থাকার অবলম্বন একমাত্র আরিশা। সে আমার কাছে আছে।

তিনি বলেন, আরিশা এবং আমার আত্মীয়স্বজন ও বন্ধুবান্ধবদের সঙ্গে সময় খুব দ্রুতই কেটে যাচ্ছে। কিন্তু আপনি কি মনে করেন না একজন অভিনয়শিল্পী তিন্নির সঙ্গে তিন্নি নিজেই অবিচার করেছেন? অনেক চাহিদাসম্পন্ন একজন অভিনেত্রী তিন্নি খুব অল্প সময়ে নিজেকে গুটিয়ে নিয়েছেন? তিন্নি উত্তরে বলেন, মাঝে মাঝে মনে হয় নিজেকে নিজে অবহেলা করেছি।

কিন্তু আবার এটাও সত্যি যে সব কিছুই ঘটে উপরওয়ালার ইচ্ছায়। তিনি হয়তো চাননি আমি সেই পথে এগোই। তবে আমার কাছে ভালো থাকাটাই মূল বিষয়। সেটা মিডিয়াকে সঙ্গে নিয়েও হতে পারে। আবার মিডিয়ার বাইরে থেকেও হতে পারে। এটা সত্য মিডিয়া আমাকে দিয়েছে অনেক। আর সেটা খুব অল্প সময়ে। আমি মিডিয়াকে কি দিয়েছি জানি না। তবে প্রতিটি মানুষের জীবন তার ইচ্ছেমতো চলে না। এখানে কোনো না কোনো কারণ থাকে ঘটনা ঘটার ক্ষেত্রে। আমার জীবনটাও সে নিয়মের বাইরে নয়। আমি অনেকটাই অগোছালো। এখন নিজেকে গোছানোর চেষ্টা করছি। আমার মেয়েকে বাবা-মা দুজনের আদর দেয়ার চেষ্টা করছি। আর কিছু পারি বা না পারি একজন ভালো মা অন্তত আমি হতে চাই। 

সূত্র : মানবজমিন