শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, বিকাল ০৩:৫২

আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যেই হামলা করা হয়েছিল : আইভী

Published : 2018-01-17 16:05:00, Updated : 2018-01-17 16:28:39

অনলাইন ডেস্ক : নারায়ণগঞ্জে হকার উচ্ছেদের ঘটনাকে কেন্দ্র করে শামীম ওসমানের লোকজন যে হামলা চালিয়েছে আমাকে হত্যা করার উদ্দেশ্যেই এটা করা হয়েছে। এ কথা বলেছেন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা.সেলিনা হায়াৎ আইভী। বুধবার (১৭ জানুয়ারি) বিকালে নিজ কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

আইভী বলেন, আমরা ফুটপাত দিয়ে প্রেসক্লাবের দিকে হেটে যাচ্ছিলাম। সেখানে হঠাৎ করেই মার খেলাম। এখানের দুই পক্ষের সংঘর্ষের কিছুই নাই। তিনি বলেন, আমি নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র আর তিনি হলেন (শামীম ওসমান) আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য। তিনি এমন কাজ কেন করলেন? সাংবাদিকদের কাছে এমন প্রশ্ন রাখলেন মেয়র আইভী।

তিনি বলেন, আমার নিকট আত্মীয় ভাই, ভাগ্নে ও ভগ্নিপতিসহ কাছের নেতাকর্মীদের মুখ দেখে দেখে হামলা করা হয়েছে। ইটবৃষ্টি ঝড়ানো হয়েছে। আমি এই ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেবো।প্রশাসনের নিষ্ক্রিয়তার কারণেই এই হামলা হয়েছে। যখন আমার ওপর ইটবৃষ্টি ঝড়ানো হচ্ছিল তখন পুলিশ কোথায় ছিল? এমন বিষয় ঘটতে পারে তা জানিয়ে প্রশাসনের পক্ষ থেকে আমাদেরকে সাবধানও করা হয়নি।

মঙ্গলবার (১৬ জানুয়ারি) বিকেল ৫টার দিকে সিটি করপোরেশনের চাষাড়া বঙ্গবন্ধু সড়কে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। নগরীতে হকার উচ্ছেদ নিয়ে নারায়ণগঞ্জের চাষাঢ়ায় নগর ভবনে সমাবেশ ডেকেছিলেন মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী। পরে হকার উচ্ছেদের বিরুদ্ধে পাল্টা কর্মসূচি ডাকেন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি শামীম ওসমান। সেই ঘটনাকে কেন্দ্র করেই এ সংঘর্ষ হয়।

সাংসদ শামীম ওসমান নগরীর ফুটপাতে বিকেল থেকে উচ্ছেদ করা হকারদের বসানোর ঘোষণা দেয়ার প্রতিবাদে নগর ভবন থেকে পায়ে হেঁটে মেয়র আইভী তার নেতাকর্মীদের নিয়ে মিছিলসহ চাষাঢ়ায় আসেন। মুক্তি জেনারেল হাসপাতালে সামনে এলে প্রতিপক্ষ তাদেরকে লক্ষ্য ইট পাটকেল নিক্ষেপ করে। নেতাকর্মীরা আইভীকে মানব ঢাল তৈরী করে রক্ষা করে। এ হামলায় মেয়র আইভী সামান্য আহত হয়েছেন। এছাড়া কয়েকজন সংবাদকর্মীও আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় নারায়ণগঞ্জের সকল মার্কেট ও চলাচল পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যায়।