সোমবার ২২ জানুয়ারি, ২০১৮, সন্ধ্যা ০৬:৩৫

দলিত বিক্ষোভে উত্তাল মহারাষ্ট্র

Published : 2018-01-03 10:49:00, Updated : 2018-01-03 11:29:19

অনলাইন ডেস্ক : ভারতের মহারাষ্ট্র দলিত বিক্ষোভে উত্তাল। মুম্বাইয়ের রাস্তায় রাস্তায় শুরু হয়েছে বিক্ষোভ। মহারাষ্ট্রের পুণে, ঠানেতেও পথে নেমেছেন দলিত বিক্ষোভকারীরা। বুধবার (৩ জানুয়ারি) গোটা মহারাষ্ট্রে বন্‌ধের ডাক দিয়েছেন দলিত নেতা প্রকাশ অম্বেডকর।

সোমবার (১ জানুয়ারি)পুণে জেলার ভিমা কোরেগাঁও এলাকায় দলিতদের কর্মসূচিতে হামলার ঘটনায় এক দলিত যুবকের মৃত্যু হয়। তার জেরে পুণে উত্তপ্ত ছিল সেদিন থেকেই। মঙ্গলবার (২ জানুয়ারি) সকাল থেকে তীব্র বিক্ষোভ শুরু হয়েছে মুম্বাইতে। শহরের একাধিক এলাকায় রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছেন আন্দোলনকারীরা। ভাঙচুর চালানো হয়েছে বহু সরকারি বাসে। উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে ঠাণেও। অঘোষিত বন্‌ধের চেহারা নিয়েছে গোটা শহর।

মঙ্গলবার সকাল থেকে এতটাই উত্তপ্ত হয়ে ওঠে মুম্বাই যে, স্কুল-কলেজ বন্ধ করে দিতে হয়েছে শহরের অনেক এলাকায়। রামবানি কলোনি, কামরাজ নগর, আচার্য গার্ডেন, অমর মহল, চেম্বুর-সহ মু্ম্বইয়ের নানা এলাকায় পথে নামেন বিক্ষোভকারীরা। রাস্তা বন্ধ করে দেওয়া হয় অধিকাংশ এলাকায়। ইস্টার্ন এক্সপ্রেস হাইওয়ের উপর কোপরি, আনন্দনগর-সহ একাধিক এলাকায় উত্তেজনা ছড়ানোর খবর রয়েছে। ঠানে এবং মুলুন্দের মধ্যে সংযোগকারী ওই হাইওয়ে সচল রাখতে বিপুল পুলিশি বন্দোবস্ত করা হয়েছে। বিভিন্ন এলাকায় এসআরপিএফ নামানো হয়েছে।

 

মুম্বাই, পুণে এবং ঠানের সঙ্গে মহারাষ্ট্রের অন্যান্য জেলার সড়ক যোগাযোগ প্রায় বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে এ দিন। আহমেদনগর, ঔরঙ্গাবাদ-সহ নানা এলাকার বাস পরিষেবা বন্ধ রাখতে হয়। ব্যাপক প্রভাব পড়েছে ট্রেন পরিষেবাতেও। বিভিন্ন এলাকায় দলিত বিক্ষোভকারীরা রেল অবরোধও করেন এ দিন। ফলে অধিকাংশ রুটের লোকাল ট্রেন বন্ধ রাখতে হয়। সিএসএমটি-কুরলা এবং মনখুর্দের মধ্যে হারবার লাইন দিয়ে কিছু ট্রেন চালানো হচ্ছে। বিক্ষোভের আঁচে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে অন্তত ১৩৪টি সরকারি বাস। মুম্বাইয়ের বিভিন্ন এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে।

সোমবার ভিমা কোরেগাঁওতে যে হামলায় এক দলিত যুবকের মৃত্যু হয়েছে, সেই হামলার ঘটনার বিচারবিভাগীয় তদন্ত হবে বলে মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফডণবীস জানিয়েছেন। মৃতের পরিবারকে ১০ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কথাও ঘোষণা করেছে ফডণবীস সরকার।

বি আর অম্বেডকরের নাতি তথা ভারিপ বহুজন মহাসঙ্ঘের প্রধান প্রকাশ অম্বেডকর অবশ্য বন্‌ধের সিদ্ধান্তে অটল। বুধবার গোটা মহারাষ্ট্রে বন্‌ধ পালিত হবে বলে তিনি সাংবাদিক বৈঠক করে জানিয়েছেন। ভিমা কোরেগাঁওতে যখন হামলা হয়েছিল দলিতদের উপর, তখন পুলিশ নিষ্ক্রিয় ছিল বলে তাঁর দাবি। পুলিশি নিষ্ক্রিয়তার প্রতিবাদেই বন্‌ধ পালিত হবে বলে তিনি জানিয়েছেন। মহারাষ্ট্র লেফ্ট ফ্রন্ট, মহারাষ্ট্র ডেমোক্র্যাটিক ফ্রন্ট-সহ বিভিন্ন সংগঠন বন্‌ধকে সমর্থন করছে বলেও তিনি জানিয়েছেন।

গুজরাতের দলিত আইকন তথা সদ্য নির্বাচিত বিধায়ক জিগ্নেশ মেবাণী মুম্বাই যেতে পারেন বলে জানা গেছে। বিভিন্ন দলিত সংগঠন যে ভাবে প্রতিবাদে মুখর হয়ে উঠেছে মুম্বাইতে, তার প্রেক্ষিতেই জিগ্নেশ মুম্বই সফর করতে পারেন।

প্রকাশ অম্বেডকর অবশ্য মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বলেছেন, মহারাষ্ট্রে যা ঘটছে, তাকে দলিত-মরাঠা সংঘর্ষ বলে ভাবলে ভুল হবে। কয়েকটি কট্টরবাদী সংগঠন গোলমাল পাকিয়েছে বলে তাঁর অভিযোগ। তিনি বলেছেন, "যদি জাতপাত সংক্রান্ত উত্তেজনা থাকত, তা হলে গতকাল ভিমা কোরেগাঁও যুদ্ধের দ্বিশতবার্ষিকী পালন করা সম্ভব হত না।"

সম্ভাজি ব্রিগেড নামে একটি মরাঠা সংগঠনই গতকালের কর্মসূচি আয়োজন করেছিল বলে তিনি দাবি করেছেন। মরাঠারা ভিমা কোরেগাঁও যুদ্ধের দ্বিশতবার্ষিকী উদযাপনের বিরোধী, এমনটা মনে করার কোনও কারণ নেই বলে অম্বেডকরের দাবি। বুধবারের বন্‌ধকে সম্পূর্ণ শান্তিপূর্ণ রাখার আহ্বানও জানিয়েছেন প্রকাশ অম্বেডকর। সূত্র: আনন্দবাজার