শনিবার ২০ জানুয়ারি, ২০১৮, ভোর ০৫:৩৯

যৌন হয়রানির বিরুদ্ধে প্রতিবাদী হবার আহ্বান হলিউড নারীদের

Published : 2018-01-02 11:59:00

অনলাইন ডেস্ক : যৌন হয়রানির বিরুদ্ধে চলমান লড়াইকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য আন্দোলনের আহ্বান জানিয়েছে হলিউডের তিনশ’র বেশি অভিনেত্রী, নারী স্ক্রিপ্টরাইটার আর পরিচালক। নববর্ষে নিউ ইয়র্ক টাইমসের পাতাজুড়ে এক বিজ্ঞাপনে এ আন্দোলনের ডাক দেয়া হয়।  

চলচ্চিত্র শিল্প এবং কর্মক্ষেত্রে হয়রানির প্রতিবাদে 'টাইমস আপ' নামের এই আন্দোলন এরই মধ্যে ১ কোটি ৩০ লাখ ডলারের তহবিল যোগাড় করেছে। গত বছরজুড়ে শীর্ষ অভিনেত্রীরা প্রযোজক হার্ভে ওয়েনস্টেইনের বিরুদ্ধে একের পর এক হয়রানির অভিযোগ আনার পর এই আন্দোলনের ডাক আসলো।

নারীরা এই আন্দোলনকে বর্ণনা করেছেন, ‘বিনোদন আর সবখানের নারীদের পরিবর্তনের জন্য একত্রিত’ হওয়ার আহ্বান হিসেবে। নিজেদের ওয়েবসাইটে লেখা এক সংহতিপত্রে টাইমস আপ বলেছে, "নারীদের নিরবতা ভাঙার লড়াই, মর্যাদা বৃদ্ধি আর কেবল শোনা কথার ইতি টানা হবে। আর এসবের বিরুদ্ধে টাইমস আপ হবে অভেদ্য একাধিপত্য।"

নাটালি পোর্টম্যান, রিজ উইদারস্পুন, কেট ব্লানচেট, ইভা লঙ্গোরিয়া, এমা স্টোনের মতো অভিনেত্রীরা শামিল হয়েছেন এই আন্দোলনে। এরই মধ্যে গঠিত হয়েছে হয়রানির শিকার নারী-পুরুষদের আইনগত সহায়তার জন্য একটি তহবিল। দেড়কোটি ডলারের লক্ষ্যমাত্রার এই তহবিলে এরই মধ্যে জমা পড়েছে ১ কোটি ৩০ লাখ ডলার।

প্রাথমিকভাবে এই আন্দোলন থেকে কৃষিক্ষেত্র, কারখানা শ্রমিক, কেয়ারটেকার আর গৃহকর্মীর মতো কাজে নিয়োজিতদের সুরক্ষায় আইনি সহায়তা দেওয়া হবে। 'লিঙ্গ বৈষম্য আর ক্ষমতার ভারসাম্য' নিয়েও কথা বলা হবে জানিয়েছে টাইমস আপ।

গত বছরে যৌন হয়রানির বিরুদ্ধে সোচ্চার হওয়া নারী-পুরুষদের 'দি সাইলেন্স ব্রেকার' হিসেবে আখ্যায়িত করে ডিসেম্বর মাসে তাদের বর্ষসেরার তালিকায় স্থান দেয় টাইমস ম্যাগাজিন।

অভিনেত্রী এলিসা মিলানো টুইটারে 'মি টু' হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করে এই হয়রানির প্রতিবাদে শামিল হওয়ার ডাক দিলে সরব হয়ে ওঠে অনলাইন দুনিয়া। কথা বলে ওঠেন পৃথিবীর নানা প্রান্তের নারী আর পুরুষেরা। অক্টোবর থেকে ডিসেম্বরের মধ্যে টুইটার আর ফেসবুকে ৬০ লাখেরও বেশি বার ব্যবহার হয় এই হ্যাশট্যাগ। সূত্র: বিবিসি