শুক্রবার ১৯ জানুয়ারি, ২০১৮, সকাল ০৯:৫৯

কবি আহসান হাবীবের জন্মবার্ষিকী আজ

Published : 2018-01-02 10:54:00

অনলাইন ডেস্ক : আহসান হাবীবের জন্ম ১৯১৭ সালের ২ জানুয়ারি, পিরোজপুরের শংকরপাশা গ্রামে। তিনি একজন খ্যাতিমান কবি ও সাহিত্যিক। দীর্ঘদিন দৈনিক বাংলা পত্রিকার সাহিত্য সম্পাদক পদে দায়িত্ব পালন সূত্রে তিনি স্বাধীনতা-উত্তর বাংলাদেশের সাহিত্য অঙ্গনে অভিভাবকের ভূমিকা রেখেছেন । তিনি পঞ্চাশ দশকের অন্যতম প্রধান আধুনিক কবি হিসেবে পরিগণিত। 

পারিবারিকভাবে আহসান হাবীব সাহিত্য-সংস্কৃতির আবহের মধ্যে বড় হয়েছেন। সেই সূত্রে বাল্যকাল থেকেই লেখালেখির সঙ্গে যুক্ত হন তিনি। তার বাড়িতে ছিল আধুনিক সাহিত্যের বইপত্র ও কিছু পুঁথি। এসব পড়তে পড়তে একসময় নিজেই কিছু লেখার তাগিদ অনুভব করেন। পিরোজপুর গভর্নমেন্ট স্কুল থেকে তিনি প্রবেশিকা পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন। এরপর চলে আসেন বরিশালে। ভর্তি হন বিএম কলেজে। কিন্তু অর্থনৈতিক সঙ্কটের কারণে কলকাতায় পাড়ি জমান। 

আহসান হাবীব ১৯৪৭ সালের ২১ জুন বিয়ে করেন বগুড়া শহরের কাটনারপাড়া নিবাসী মহসীন আলী মিয়ার কন্যা সুফিয়া খাতুনকে। তার দুই কন্যা (কেয়া চৌধুরী ও জোহরা নাসরীন) ও দুই পুত্রের (মঈনুল আহসান সাবের ও মনজুরুল আহসান জাবের) মধ্যে মঈনুল আহসান সাবের একজন স্বনামখ্যাত বাংলা ঔপন্যাসিক।
১২-১৩ বছর বয়সে স্কুলে পড়ার সময়ই স্কুল ম্যাগাজিনে তার একটি প্রবন্ধ প্রকাশিত হয়। তার প্রথম কবিতা মায়ের কবরপাড়ে কিশোর পিরোজপুর গভর্নমেন্ট স্কুল ম্যাগাজিনে ছাপা হয় । পরে কলকাতার কয়েকটি সাহিত্য পত্রিকায় তার লেখা প্রকাশিত হলে নিজের সম্পর্কে আস্থা বেড়ে যায়।

দেশ, মোহাম্মদী, বিচিত্রার মতো নামিদামি পত্রিকায় তার বেশ কিছু লেখা প্রকাশিত হয়। এরপর শুরু হয় আহসান হাবীবের সংগ্রামমুখর জীবনের পথচলা। কলকাতায় এসে ১৯৩৭ সালে দৈনিক তকবির পত্রিকার সহসম্পাদকের কাজে নিযুক্ত হন। বেতন ছিল মাত্র ১৭ টাকা। পরে বুলবুল ও মাসিক সওগাত পত্রিকায় কাজ করেন। এ ছাড়া তিনি আকাশবাণীতে কলকাতা কেন্দ্রের স্টাফ আর্টিস্ট পদে কাজ করেন।
১৯৮৫ সালের ১০ জুলাই আহসান হাবীব মারা যান।