মঙ্গলবার ২৩ জানুয়ারি, ২০১৮, সকাল ১০:০৯

বাণিজ্য মেলার উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

Published : 2018-01-01 14:26:00
ফাইল ছবি

অনলাইন ডেস্ক : আজ সোমবার (১ জানুয়ারি) ২৩তম ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এ উদ্বোধন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।  প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনের মধ্যে দিয়ে সোমবার ঢাকায় শুরু হয়ে গেল মাসব্যাপী আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলার।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে কাঁচামালসহ ওষুধকে প্রোডাক্ট অব দ্য ইয়ার ঘোষণা করে ন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।  তিনি বলেন, আমরা মুন্সীগঞ্জে ওষুধের কাঁচামালের প্লান্ট স্থাপন করছি। এই প্রোডাক্ট বিদেশে রপ্তানি হয় এবং তা দেশের অর্থনীতিতে বিশেষ অবদান রাখছে। তাই আমি ২০১৮ সালকে কাঁচামালসহ ওষুধকে প্রোডাক্ট অব দ্য ইয়ার ঘোষণা করছি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে ওষুধ শিল্প একটি উচ্চ প্রবৃদ্ধির শিল্প। দেশের চাহিদার ৯৮ ভাগ যোগান দিয়ে বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে শুরু করে অস্ট্রেলিয়া, আফ্রিকাসহ সারা বিশ্বব্যাপী ১শর বেশি দেশে আমাদের এই ওষুধ রপ্তানি হচ্ছে। তিনি বলেন, ওষুধ শিল্পের উন্নতির লক্ষ্যে আমরা মুন্সীগঞ্জে একটা কাঁচামাল উৎপাদন প্লান্ট স্থাপনের কাজ শুরু করেছি। বিশ্ববাজারে বাংলাদেশের ওষুধ শিল্পকে মর্যাদার আসনে অধিষ্ঠিত করার লক্ষ্যে এই পণ্যকে প্রোডাক্ট অব দ্য ইয়ার ঘোষণা করা হলো।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমার বিশ্বাস তৈরি পোশাক শিল্পের মতো এই শিল্প অচিরেই আমাদের জন্য, দেশের জন্য সম্মান বয়ে আনবে।  শেখ হাসিনা এসময় আরো বলেন, বিশাল সমুদ্র সীমা আমরা অর্জন করেছি। এই সমুদ্র সম্পদকে আমাদের কাজে লাগাতে হবে। এই সম্পদ আমাদের ব্যবসা-বাণিজ্যে বিরাট অবদান রাখতে পারে। আমরা সেদিকে লক্ষ্য রেখে কাজ করছি।  তিনি বলেন, ২০১৭ সালে চামড়া খাতকে প্রোডাক্ট অব দ্য ইয়ার ঘোষণা করেছিলাম। চামড়া শিল্পের উন্নয়নে আমরা অনেক কাজ করেছি।

এবারের মেলায় ভিন্ন আঙ্গিক আনার চেষ্টা করা হয়েছে। বাণিজ্য মেলার প্রধান প্রবেশদ্বার করা হয়েছে পদ্মা সেতুর আদলে। মেলায় স্টল ও প্যাভিলিয়ন থাকছে ৫৮৯টি। এর মধ্যে বড় প্যাভিলিয়ন ১১২, মিনি প্যাভিলিয়ন ৭৭টি।

এছাড়া বিভিন্ন ক্যাটাগরির মোট স্টলের সংখ্যা ৪০০টি থাকছে। থাকছে বঙ্গবন্ধু প্যাভিলিয়ন, ই-শপ, শিশুপার্ক, প্রাইমারি হেলথ সেন্টার, মা ও শিশু কেন্দ্র, রক্ত সংগ্রহ কেন্দ্রসহ ৩২ ধরনের অবকাঠামো। মেলায় বিদেশি অংশগ্রহণকারী হিসেবে ১৭ দেশের ৪৩টি প্রতিষ্ঠান অংশ নেবে। মেলা চলবে সকাল ১০টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত। টিকিটের মূল্য রাখা হয়েছে প্রাপ্ত বয়স্কদের জন্য ৩০ টাকা, অপ্রাপ্তবয়স্কদের জন্য ২০ টাকা।