শনিবার ২০ জানুয়ারি, ২০১৮, রাত ০৯:০২

মাদ্রাসার ছাত্রীদের যৌন নিগ্রহের অভিযোগ, উদ্ধার ৫১

Published : 2017-12-31 17:17:00
প্রতীকী ছবি

অনলাইন ডেস্ক : রতের উত্তর প্রদেশের রাজধানী লক্ষ্ণৌয়ের শাহাদতগঞ্জের জামিয়া খাদিজাতুল লিলানওয়াত মাদ্রাসার ছাত্রীদের ওপর যৌন নির্যাতন চালানোর অভিযোগ উঠেছে। এই ছাত্রীরা বেশ কিছুদিন ধরে কাগজের টুকরায় তাদের নির্যাতনের কথা লিখে তা ছুড়ে দিত রাস্তায়। এরপরই পাড়া-পড়শিরা ওই কাগজের টুকরো পেয়ে শরণাপন্ন হন পুলিশ এবং রাজ্যের শিশুকল্যাণ দপ্তরে।

শুক্রবার (২৯ ডিসেম্বর) রাত ন’টার দিকে প্রশাসন ও পুলিশের একটি যৌথ বাহিনী হানা দেয় ওই মাদ্রাসায়। উদ্ধার করা হয়েছে মাদ্রাসার ৫১ জন ছাত্রীকে। তাদের অভিযোগের ভিত্তিতে গ্রেফতার করা হয়েছে মাদ্রাসার ডিরেক্টর কাজি মহম্মদ তৈয়াব জিয়াকে। তার বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে অত্যাচার, যৌন হেনস্থা, ধর্ষণের চেষ্টার মতো অভিযোগ জানিয়েছে ছাত্রীরা।

উত্তরপ্রদেশের বিভিন্ন অঞ্চল এবং অন্যান্য রাজ্য থেকেও ওই মাদ্রাসায় ভর্তি হতে আসত ছাত্রীরা। মোট ছাত্রীসংখ্যা ছিল ১২৬। এর মধ্যে শুক্রবার ওই সময়ে মাদ্রাসায় ৫১ জন ছাত্রী ছিল। এসএসপি দীপক কুমারের নেতৃত্বে পুলিশের একটি বড় দল মাদ্রাসায় হানা দিলে হইচই পড়ে যায়। পালাতে পারেনি কাজি। তাকে ধরে ফেলে পুলিশ।

প্রাথমিক তদন্তের পরে পুলিশ জানিয়েছে, মাদ্রাসার ভিতরে যে এই কাজ চলছে, তার কিছুই জানতেন না বলে দাবি করেছেন মাদ্রাসা-মালিক। তিনি ওই মাদ্রাসা থেকে বেশ কিছুটা দূরে অন্যত্র থাকতেন। দীপক কুমার বলেন, "গোমতী নগরের বাসিন্দা ১৫ বছরের এক কিশোরী লিখিত অভিযোগে জানিয়েছে, তাদের উপর যৌন হেনস্থা করত ওই কাজি। আরও ৭ ছাত্রীকে শ্লীলতাহানি করা হয়েছে বলেও অভিযোগ জানিয়েছে সে।" উদ্ধার হওয়া আরো এক ছাত্রী জানিয়েছে, কাজির সঙ্গে যৌন সম্পর্কে রাজি না হলেই মারধর করা হতো তাদের। উদ্ধার হওয়া ছাত্রীদের আপাতত হোমে পাঠানো হয়েছে। সূত্র: আনন্দবাজার