মঙ্গলবার ২৩ জানুয়ারি, ২০১৮, সকাল ০৮:০৫

ষোড়শ সংশোধনী : রিভিউতে বিদেশি আইনজীবী চেয়ে আবেদন

Published : 2017-12-18 14:05:00

অনলাইন ডেস্ক : সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায়ের রিভিউ শুনানিতে বিদেশি আইনজীবী নিয়োগের অনুমতি চেয়ে বাংলাদেশ বার কাউন্সিলে আবেদন করা হয়েছে । সোমবার (১৮ ডিসেম্বর) বার কাউন্সিলে রেজিস্ট্রি ডাকযোগে এ আবেদন করেন রিটকারী আইনজীবী এখলাছ উদ্দীন ভূইয়া ।  

আবেদনে ভারতীয় সুপ্রিম কোর্টের বিশিষ্ট তিনজন আইনজীবীর কথা বলা হয়েছে । তারা হলেন- অ্যাডভোকেট আগারওয়াল আমবুজ, অ্যাডভোকেট আগারওয়াল অনামিকা গুপ্তা ও অ্যাডভোকেট অধিমুলাম ভেঙকোটেরমান । আবেদন পাওয়ার ১০ দিনের মধ্যে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রার্থনা করা হয়েছে।

গত ৩ জুলাই সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে সাত সদস্যের পূর্ণাঙ্গ আপিল বেঞ্চ ষোড়শ সংশোধনী অবৈধ ঘোষণা করে রায় দেন । গত ০১ আগস্ট এ রায়ের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশিত হয় । রায় ঘোষণার পর থেকে এ রায়ের বিরুদ্ধে সমালোচনা করে আসছে বর্তমান ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ । এ রায়ের বিরুদ্ধে রিভিউ আবেদন করা হবে বলেও জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক ও অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম । রিভিউয়ের প্রস্তুতিও নিচ্ছে রাষ্ট্রপক্ষ। যেকোনো সময় এ রিভিউ আবেদন করা হতে পারে।

ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায়ে সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার ছাড়া এ বেঞ্চের অন্য সদস্যরা হলেন- বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহ্হাব মিঞা, বিচারপতি নাজমুন আরা সুলতানা, বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন, বিচারপতি মোহাম্মদ ইমান আলী, বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী ও বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দার ।

বিচারপতি অপসারণের ক্ষমতা সংসদের কাছে ফিরিয়ে নিতে ২০১৪ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী সংসদে পাস হয় । একই বছরের ২২ সেপ্টেম্বর তা গেজেট আকারে প্রকাশ হয় । সংবিধানের এই সংশোধনীর বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে ওই বছরের ৫ নভেম্বর সুপ্রিম কোর্টের নয়জন আইনজীবী হাইকোর্টে রিট করেন ।

২০১৬ সালের ৫ মে বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী, বিচারপতি কাজী রেজা-উল হক ও বিচারপতি আশরাফুল কামালের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের বিশেষ বেঞ্চ সংখ্যাগরিষ্ঠ মতের ভিত্তিতে ষোড়শ সংশোধনী অবৈধ বলে রায় ঘোষণা করেন । মামলাটির সঙ্গে সাংবিধানিক বিষয় জড়িত থাকায় হাইকোর্ট সরাসরি আপিলের অনুমতি দেন । ওই বছরের ১১ আগস্ট ষোড়শ সংশোধনী অবৈধ, বাতিল ও সংবিধানপরিপন্থী ঘোষণা করে দেয়া রায়ের পূর্ণাঙ্গ অনুলিপি প্রকাশ হয় ।