রবিবার ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৭, সকাল ০৮:৩২

ট্রাম্পের নিন্দায় মুখর গোটা বিশ্ব

Published : 2017-12-07 15:42:00, Updated : 2017-12-07 16:07:25

অনলাইন ডেস্ক : জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে ঘোষণা করে বিশ্বব্যাপী কঠোর সমালোচনার মুখে পড়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। যুক্তরাষ্ট্রের কাছের মিত্র থেকে শুরু করে
গোটা বিশ্ব ট্রাম্পে নিন্দায় সরব।

যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম মিত্র সৌদি আরব ট্রাম্পের এ সিদ্ধান্তকে 'অহেতুক এবং দায়িত্বজ্ঞানহীন' বলে অভিহিত করেছে। অপরদিকে যুক্তরাজ্য এবং ফ্রান্সও এ সিদ্ধান্তকে সমর্থন করে না বলে জানিয়েছে। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে বলেছেন, তাঁর সরকার মার্কিন প্রেসিডেন্টের সিদ্ধান্তকে সমর্থন করছে না। এটি মধ্যপ্রাচ্যের শান্তি আলোচনার জন্য সহায়ক নয়। ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রেনও বলেছেন, তার দেশ যুক্তরাষ্ট্রের এ সিদ্ধান্তকে সমর্থন করে না।

ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনজামিন নেতানিয়াহু জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে ঘোষণাকে 'ঐতিহাসিক দিন' বলে উল্লেখ করেছেন। তবে ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস ট্রাম্পের এই সিদ্ধান্তে কঠোর সমালোচনা করে বলেছেন ট্রাম্পের এই সিদ্ধান্তের পর যুক্তরাষ্ট্র আর কোনোভাবেই ফিলিস্তিন-ইসরায়েল শান্তি আলোচনায় মধ্যস্থতাকারীর ভূমিকা পালন করতে পারবে না। এই সিদ্ধান্ত শান্তি আলোচনার সব ধরনের উদ্যোগ নষ্ট করে দিয়েছে।

ফিলিস্তিনিরা বৃহস্পতিবার (৭ ডিসেম্বর) পশ্চিম তীর এবং গাজা উপত্যকায় একদিনের অনশন ও বিক্ষোভ করেছে। জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের ১৫ টি দেশের মধ্যে ৮ টি দেশ জরুরি বৈঠকের আহ্বান জানিয়েছে। এরই প্রেক্ষিতে শুক্রবার (৮ ডিসেম্বর) এ সিদ্ধান্তের প্রেক্ষিতে নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া আরব লীগের বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে শনিবার (৯ ডিসেম্বর)।

বুধবার (৬ ডিসেম্বর) হোয়াইট হাউসে এক ভাষণে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বিতর্কিত জেরুজালেম শহরকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসাবে স্বীকৃতি দিয়েছেন। এই ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত কয়েক দশকের মার্কিন নীতিকে বদলে দিয়েছে। মার্কিন দূতাবাস তেল আবিব থেকে জেরুজালেমে সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার ঘোষণাও দিয়েছেন তিনি।

ট্রাম্পের জেরুজালেম ঘোষণার সমালোচনায় ইরান বলেছে, এ সিদ্ধান্ত ইসরায়েলের বিরুদ্ধে ফিলিস্তিনিদের নতুন ইন্তিফাদা বা গণ-অভ্যুত্থানের সূচনা করতে পারে। সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদের কার্যালয় থেকেও ট্রাম্পের এ সিদ্ধান্তের নিন্দা জানানো হয়েছে। সৌদি আরবের রাজকীয় আদালত বলছে, "ট্রাম্পের এ সিদ্ধান্ত জেরুজালেম বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের নিরপেক্ষ অবস্থানকে বিতর্কিত করেছে। এই সিদ্ধান্ত শান্তি প্রক্রিয়াকে চরমভাবে ব্যহত করবে।

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান ট্রাম্পের সিদ্ধান্তের কঠোর সমালোচনা করেছেন। এ ঘোষণা মধ্যপ্রাচ্যকে আগুনের মধ্যে ঠেলে দেবে বলে তিনি মন্তব্য করেছেন। ইতিমধ্যে এ সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে তুরস্কে অবস্থিত মার্কিন দূতাবাসের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদের কার্যালয় থেকেও ট্রাম্পের জেরুজালেম সিদ্ধান্তের নিন্দা জানানো হয়েছে। লেবাননের প্রধানমন্ত্রী সাদ হারিরি বলেছেন, "আরব বিশ্ব কখনোই ট্রাম্পের এমন সিদ্ধান্ত মেনে নেবে না।" জর্ডান সরকারের মুখপাত্র মোহামেদ মোমানি এ বিষয়ে বলেছেন, ট্রাম্প জেরুজালেম ঘোষণার মাধ্যমে জাতিসংঘ সনদ ও আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন করেছেন।

মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাক যুক্তরাষ্ট্রের এ সিদ্ধান্তে বিরুদ্ধে মুসলিম বিশ্বকে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণের আহ্বান জানিয়েছেন। জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস ট্রাম্পের ঘোষণাকে 'গভীর উদ্বেগের' বিষয় বলে সমালোচনা করেছেন।   সূত্র: বিবিসি