বুধবার ২২ নভেম্বর, ২০১৭, সকাল ০৭:৫৪

চার উইকেটে জয় পেল ঢাকা ডায়নামাইটস

Published : 2017-11-14 13:09:00, Updated : 2017-11-14 16:33:16

অনলাইন ডেস্ক : বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) দ্বিতীয়বারের মত মুখোমুখি হয়েছে ঢাকা ডায়নামাইটস ও খুলনা টাইটান্স। প্রথম দেখায় খুলনার বিপক্ষে ঢাকা ১৩৭ রানের বড় জয় পেয়েছিল। আর শেরেবাংলায় দ্বিতীয় দেখায় টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছে ঢাকার অধিনায়ক সাকিব। ফলে ব্যাটিং করার সুযোগ পায় খুলনা টাইটান্স। ব্যাটিংয়ে নেমে খুলনা টাইটান্স নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে সংগ্রহ করে ১৫৬ রান। ফলে এ ম্যাচে জয় পেতে হলে ডায়নামাইটসের টার্গেট দাঁড়ায় ১৫৭ রান। ব্যাটিংয়ে নেমে নির্ধারিত ওভার শেষ হবার ১ বল বাকি থাকতেই জয়ের লক্ষ্যমাত্রায় পৌছে ঢাকা ডায়নামাইটস। এজন্য হারাতে তাদের হয় ছয়টি উইকেট। ফলে এ ম্যাচে খুলনা টাইটান্সের বিপক্ষে ঢাকা ডায়নামাইটস চার উইকেটে জয় পায়।

সিলেটের ঘরের মাঠে হারলেও, ঢাকায় ফিরেই রুদ্রমূর্তি ধারন করে ঢাকা। মাত্র ১০১ রানেই অলআউট করে দেয় পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থাকা সিলেট সিক্সার্সকে। আফ্রিদিময় ম্যাচটিতে ঢাকা জয় পায় ৮ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে। ৭৩ বল হাতে রেখেই জয়ের বন্দরে পৌঁছায় দলটি। ফলে এ ম্যাচ থেকেও রান রেট বাড়িয়ে পয়েন্ট টেবিলের দ্বিতীয় স্থানে উঠে গেছে ঢাকা।

এদিকে নিজেদের প্রথম ম্যাচে ঢাকার কাছে শোচনীয়ভাবে হারের পর টান তিন ম্যাচ জিতে উড়তে থাকা সিলেট সিক্সার্সের বিপক্ষেই ঘুরে দাঁড়ায় খুলনা টাইটান্স। সিলেট সিক্সার্সের বিপক্ষে ছয় উইকেটের বিশাল জয় পায় দলটি।

সিলেটের সঙ্গে শেষ ম্যাচের আত্মবিশ্বাসটি ধরে রেখে ঢাকা পর্বে চিটাগং ভাইকিংসের বিপক্ষে মাঠে নামে খুলনা। আরিফুল-ব্র্যাথওয়েটের ব্যাটিংয়ের পর আবু জায়েদে রাহীর দুর্দান্ত বোলিংয়ে ১৮ রানের জয় পায় খুলনা। এ জয়ের ফলে পয়েন্ট টেবিলের চারে উঠে আসে দলটি।

মাঠে নামার আগে দু'দলই প্রেরণা খুঁজবে নিজেদের শেষ দুই ম্যাচের জয় থেকে। তবে ঢাকা একটু এগিয়েই থাকবে খুলনা থেকে। ঢাকার জন্য বড় প্রেরণা হতে পারে সিলেট পর্বে খুলনার বিপক্ষে বড় জয় আর শেষ ম্যাচে সিলেটের বিপক্ষে চালানো বোলিং আর ব্যাটিং তাণ্ডব। এছাড়াও ঢাকার জন্য সবচেয়ে বড় প্রেরণা হবে ঘরের মাঠের দর্শক।

দুটি দলই একাদশে একটি করে পরিবর্তন এনেছে। ঢাকার হয়ে শহীদের পরিবর্তে মাঠে নামবে নাদিফ চৌধুরী আর খুলনার হয়ে মোশারফের বদলে ধীমান ঘোষ।

ঢাকা ডায়নামাইটস: সাকিব আল হাসান, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, নাদিফ চৌধুরী, আবু হায়দার রনি, জহরুল ইসলাম, সৈয়দ খালেদ আহমেদ, শহিদ আফ্রিদি, এভিন লুইস, সুনিল নারিন, ক্যামেরন ডেলপোর্ট ও কাইরন পোলার্ড।

খুলনা টাইটান্স: মাহমুদউল্লাহ (অধিনায়ক), শাডউইক ওয়ালটন, মাইকেল ক্লিঙ্গার, নাজমুল হোসেন শান্ত, কার্লোস ব্র্যাথওয়েট, রাইলি রুশো, আরিফুল হক, জফরা আর্চার, ধীমান ঘোষ, শফিউল ইসলাম ও আবু জায়েদ।