বুধবার ২২ নভেম্বর, ২০১৭, সকাল ০৭:৫২

নুহাশ পল্লীতে প্রয়াত লেখক হুমায়ুন আহমেদের ৬৯তম জন্ম বার্ষিকী পালন

বাবার কবরের সামনে শিশু নিষাদ-নিনিদ

Published : 2017-11-13 18:13:00, Updated : 2017-11-13 18:21:51
বাবার জন্ম বার্ষিকীতে কেক কাটছে শিশু নিষাদ-নিনিদ প্রয়াত কথা সাহিত্যিক নন্দিত লেখক হুমায়ুন আহমেদের ৬৯তম জন্ম বার্ষিকী পালন করা হয়েছে। গাজীপুরের নুহাশ পল্লীতে কেক কেটে জন্ম জন্মদিন পালন করা হয়েছে। গতকাল সোমবার বেলা পৌনে ১১টার দিকে লেখকের স্ত্রী মেহের আফরোজ শাওন,দুই ছেলে নিষাদ,নিনিদসহ নুহাশ পল্লীর কর্মকর্তা, কর্মচারি ও ভক্ত-দর্শনার্থীরা অনুষ্ঠানে এক সাথে মিলে কেক কাটেন।

এ সময় লেখকের স্ত্রী মেহের আফরোজ শাওন সাংবাদিকদের বলেন, নুহাশ পল্লীতে প্রয়াত লেখক হুমায়ুন আহমেদ স্মৃতি জাদুঘর করব। এ প্রস্তাবটি পরিবারের অন্যনান্য সদস্যদের সঙ্গে আমি আলোচনা করেছি। আশা করছি খুব শিগগিরই পারিবারিক সম্মতিতে হুমায়ুন আহমেদ যাদু ঘরের কাজ শুরু করতে পারব। সেখানে হুমায়ুন আহমদের ব্যবহার্য জিনিসপত্র (যেমন-চশমা, কলম, টেবিল, হাতের লেখা নাটক বা বইয়ের স্ক্রিপ্ট, বই) সংগ্রহে থাকবে। আশা করছি খুব শিগগিরই এ বিষয়ে ভাল খবর দিতে পারব।

তিনি বলেন, নুহাশ পল্লীতে ক্যান্সার হাসপাতালের স্বপ্নটি হুমায়ুন আহমেদের। হুমায়ুন আহমেদ ক্যান্সার হাসপাতাল প্রতিষ্ঠার জন্য যে ডাক দিয়েছিলেন তাঁর অবর্তমানে আমি ডাক দিলে সেই সাড়া পাবো বলে ভাবছি না। বাংলাদেশের সরকারি , বেসরকারি বুদ্ধিজীবি, ব্যবসায়ী, শিল্পপতি, সকল পর্যায়ের মানুষ সবাই মিলে এগিয়ে আসলে হুমায়ুন আহমেদের সে ডাকের বাস্তবায়ন সম্ভব। এ ক্ষেত্রে একটি কমিটি করে শুরু করা যেতে পারে। আমি ও আমরা তথা পরিবারের সবাই তাদের পাশে থাকব।

এ দিন সকাল সাড়ে ১০টার দিকে দুই ছেলেকে সঙ্গে নিয়ে হুমায়ুন আহমেদের কবরে পুষ্পস্তুবক অর্পন করেন মেহের আফরোজ শাওন। পরে স্বামীর আত্মার শান্তি কামনা করে মোনাজাতে অংশ নেন সবাই। এ সময় অভিনেতা সৈয়দ হাসান সোহেল সহ বিভিন্ন অভিনেতা ও হুমায়ূন ভক্তরা উপস্থিত ছিলেন।

 

বাবার কবরের সামনে শিশু নিষাদ-নিনিদ

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

লেখকের জন্মদিন উপলক্ষে নানা কর্মসূচি পালন করেন নুহাশ পল্লীর কর্মচারীরা। নুহাশ পল্লীর ব্যবস্থাপক মো. সাইফুল ইসলাম বুলবুল জানান, তাদের পক্ষ থেকে রোববার রাত ১২টা ১মিনিটে মোমবাতি জ্বালানো ও কেক কাটা হয়েছে। এ ছাড়া দুপুরে হিমুরা হুমায়ন আহমদের কবরে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

নুহাশ পল্লীর ভাস্কর আসাদুজ্জামান খান বলেন, স্যারের ৬৯তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে শেকড়-বাকলের তৈরি ৬৯ ধরনের শিল্পকর্মে প্রদর্শণীর আয়োজন করা হয়েছে। সাতদিন চলবে এ প্রদর্শনী। তার তৈরি এসব শিল্পকর্ম বিক্রি করা হবে।

এ দিকে হিমু পরিবহনের উদ্যোগে গাজীপুর জেলা পরিষদ মিলনায়তনে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন গাজীপুরের জেলা প্রশাসক দেওয়ান মুহম্মদ হুমায়ূন কবীর।

 

কবর জিয়ারতের পর সবাই মোনাজাত করছে

আরও খবর