বুধবার ২২ নভেম্বর, ২০১৭, সকাল ০৭:৫২

জঙ্গিবাদ ও সাসম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর অন্যতম অস্ত্র সংস্কৃতিচর্চা: আসাদুজ্জামান নূর

Published : 2017-10-23 16:11:00,

অনলাইন ডেস্ক : সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর বলেছেন, জঙ্গিবাদ ও সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর অন্যতম অস্ত্র হলো সংস্কৃতিচর্চা। কারণ সংস্কৃতিচর্চাই পারে একটি মানবিক ও প্রগতিশীল সমাজ গড়ে তুলতে। মহান মুক্তিযুদ্ধের ভেতর দিয়ে স্বাধীন বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা করতে যে উপাদানসমূহ নেপথ্যে মুখ্য ভূমিকা পালন করেছে তার মধ্যে অন্যতম প্রধান হলো নাট্যআন্দোলন। নাটক ছিল পাকিস্তানি হানাদার শাসকগোষ্ঠীর বিরুদ্ধে প্রতিবাদের বড় হাতিয়ার।

মন্ত্রী ২২ অক্টেবার ঢাকায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির নন্দনমঞ্চে আরণ্যক নাট্যদলের ৪৫ বছরপূর্তি উপলক্ষে আয়োজিত “পুষ্প ও মঙ্গল আন্তর্জাতিক নাট্যোত্সব ২০১৭” এর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, স্বাধীনতার পর বাংলাদেশে নাট্যচর্চা ও নাট্যআন্দোলন বেগবান করতে যে কয়টি নাট্যদল ভূমিকা রেখেছে তার মধ্যে অন্যতম আরণ্যক নাট্যদল। আরণ্যক বেশ কিছু সাড়া জাগানো নাটক উপহার দিয়েছে। তিনি বলেন, বর্তমানে নাটকের ব্যাপ্তি বেড়েছে, আরো প্রসারিত হয়েছে। তবে স্বাধীনতার পর ঢাকার বাইরে নাট্যচর্চার যে জোয়ার ছিল, তাতে কিছুটা ভাটা পড়েছে। তবে বর্তমান সরকার ঢাকার বাইরে দেশব্যাপী নাট্যচর্চা তথা সাংস্কৃতিক চর্চাকে ছড়িয়ে দিতে উপজেলা পর্যায়ে শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তন নির্মাণ করছে।
আরণ্যক নাট্যদলের প্রধান সম্পাদক মান্নান হীরার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ইরান ও নরওয়ের রাষ্ট্রদূত যথাক্রমে ড. আব্বাস ভায়েজি দেহনাভী সিদসেল ব্লেকেন। সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী, বিশিষ্ট নাট্যব্যক্তিত্ব রামেন্দু মজুমদার ও সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুছ। স্বাগত বক্তৃতা করেন আরণ্যক নাট্যদলের কর্ণধার ও বিশিষ্ট নাট্যব্যক্তিত্ব মামুনুর রশীদ।

প্রসঙ্গত., উত্সবে আরণ্যক ছাড়াও নরওয়ে, ইরান, হংকং ও ভারতসহ মোট ৮টি নাট্যদল অংশগ্রহণ করবে।