মঙ্গলবার ২৩ জানুয়ারি, ২০১৮, দুপুর ১২:১৭

ব্লু হোয়েল গেম খেলা থেকে সাবধান

Published : 2017-10-14 11:23:00

অনলাইন ডেস্ক : মোবাইলে ব্লু হোয়েল গেম খেলছেন উঠতি বয়সি তরুণ-তরুণীরা । এই গেম খেলে ধাপে ধাপে প্ররোচিত করে আত্মহত্যার দিকে ঠেলে দেওয়া হচ্ছে । এছাড়া এক শ্রেণীর লোক এটি নিয়ে সামাজিক সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নিয়ে নানা গুজব ছড়াচ্ছে । তাই সকল অভিভাবক কে এবিষয়ে সাবধান হতে হবে । 

বৃহস্পতিবার (১২ অক্টোবর) ফেসবুকে একটি ভুয়া বার্তা ছড়িয়ে পড়েছে । বলা হচ্ছে ১৩ অক্টোবর শুক্রবার রাত ৯টা থেকে ১০টা পর্যন্ত এক ঘণ্টা বাংলাদেশের সব অ‍্যান্ড্রয়েড ফোনে ব্লু হোয়েল গেম ঢুকিয়ে দেওয়া হবে। যা প্রবেশের ফলে আপনার ফোনের সব ব‍্যক্তিগত তথ‍্য, ফেসবুক, টুইটার, হোয়াটসঅ‍্যাপ, আইএমওসহ সবকিছু ধ্বংস হয়ে যাবে । তাই শুক্রবার রাত ৯ থেকে ১০টা পর্যন্ত ফোন বন্ধ রাখুন ।দেশের সেবায় এটি বেশি বেশি ফরোয়ার্ড করুন। জনসচেতনতায় বিটিআরসি।

এ বিষয়ে বিটিআরসি’র সচিব ও মুখপাত্র সরওয়ার আলম গণমাধ্যমকে বলেছেন, সবার অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে যে, বিটিআরসি থেকে ব্লু হোয়েল গেম সম্পর্কিত কোনও বার্তা প্রকাশ বা প্রচার করা হয়নি ।
এই পুরো বার্তাটি  সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট । বিটিআরসি’র নাম ব্যবহার করে এরকম মিথ্যা ও বিভ্রান্তিমূলক বার্তা প্রচার করা শাস্তিযোগ্য অপরাধ ।
এ ধরনের সাইবার অপরাধ থেকে বিরত থাকার জন্য সংশ্লিষ্ট সবাইকে সতর্ক করা যাচ্ছে । দেশের সব মোবাইল ও ইন্টারনেট ব্যবহারকারীকে এ বিষয়ে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য অনুরোধ করা হচ্ছে ।

অনলাইন গেম ব্লু  হোয়েলে (নীল তিমি) আসক্ত হয়ে পড়েছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্র । চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ বিষয়টি জানতে পেরে তাঁকে কাউন্সেলিং করা শুরু করে । এরপর তিনি গেমটি না খেলার জন্য মনস্থির করেন । আগামী ছয় মাস ছাত্রটির অনলাইন ব্যবহার পর্যবেক্ষণ করবে পুলিশ ।

চট্টগ্রামের অতিরিক্ত জেলা পুলিশ সুপার (উত্তর) মো. মশিউদ্দৌলা রেজা আজ বুধবার গণমাধ্যমকে বলেন, ৫ অক্টোবর রাতে হলে থাকা চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক প্রথম বর্ষের এক ছাত্র কৌতূহলবশত তাঁর মেসেঞ্জারে আসা লিংকে ক্লিক করেন । এরপর তাঁর মুঠোফোনে ব্লু  হোয়েল গেমটি ডাউনলোড করেন । এরপর তিনি চারটি ধাপ খেলেন । তাঁর আচরণে সন্দেহ হওয়ায় একই হলের আরেক ছাত্র এই পুলিশ কর্মকর্তার সঙ্গে যোগাযোগ করেন । তিনি গতকাল মঙ্গলবার ছাত্রটিকে নিজেদের হেফাজতে নিয়ে যান । এরপর ছাত্রটিকে কাউন্সেলিং করেন। ছাত্রটি নিজের ভুল বুঝতে পারেন ।

নগরের হালিশহরে জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে ছাত্রটি সাংবাদিকদের বলেন, কৌতূহলবশত লিংকটিতে ক্লিক করে গেমটি ডাউনলোড করেছিলেন তিনি । এখন নিজের ভুল বুঝতে পেরেছেন । কেউ যাতে এটা না খেলেন, সে আহ্বান জানান তিনি । তাঁর হাতে ব্লেড দিয়ে নীল তিমি আঁকা দেখা গেছে ।

এই পুলিশ কর্মকর্তা মুঠোফোন, ট্যাব, ল্যাপটপ ও ইন্টারনেট ব্যবহারে সবাইকে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, সন্তানদের আচরণে সন্দেহজনক কোনো কিছু দেখলে পুলিশকে অবহিত করতে হবে । অভিভাবক থেকে শুরু করে সমাজের বিভিন্ন স্তরের দায়িত্বশীল ব্যক্তি এ বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারেন । যে ব্যক্তি আত্মহত্যার চেষ্টা করে বা উদ্যোগ গ্রহণ করেন, তিনি এক বছরের কারাদণ্ড কিংবা অর্থদণ্ড অথবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হতে পারেন ।

ব্লু  হোয়েল অন্য গেমগুলোর মতো ইন্টারঅ্যাকটিভ নয় । এই গেমে খেলোয়াড়ের কাছে লিখিত বার্তায় গেম প্রশাসকের নির্দেশনা আসে । সেখানে একটা একটা করে কাজের নির্দেশ বা চ্যালেঞ্জ থাকে । সে কাজটা করার পর ছবি তুলে বা ভিডিও করে গেম প্রশাসককে পাঠাতে হয় । এভাবে ৫০তম ধাপ বা ৫০তম দিনে সবশেষ নির্দেশটি আসে । এ নির্দেশ হলো আত্মহত্যা করার ।