সোমবার ২৩ অক্টোবর, ২০১৭, রাত ১১:১৮

১৮ অক্টোবর থেকে শুরু হচ্ছে আইসিটি এক্সপো

Published : 2017-10-11 15:50:00, Count : 134

নিজস্ব প্রতিবেদক : মেক ইন বাংলাদেশ স্লোগানে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ১৮ অক্টোবর থেকে শুরু হচ্ছে তিন দিনের তথ্যপ্রযুক্তি প্রদর্শনী ‘বাংলাদেশ আইসিটি এক্সপো ২০১৭’। বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষ এবং বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির (বিসিএস)  যৌথ  উদ্যোগে এবার অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে তথ্যপ্রযুক্তি পণ্য ও সেবার বর্ণাঢ্য এ প্রদর্শনী। বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ১৮-২০ অক্টোবর ২০১৭ এ এক্সপোর আয়োজন করা হয়েছে।

আইসিটি এক্সপো উপলক্ষে ১১ অক্টোবর বুধবার আইসিটি ডিভিশনের সম্মেলন কক্ষে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। আয়োজন সম্পর্কে বিস্তারিত তুলে ধরেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক ও বিসিএসের সভাপতি আলী আশফাক। অনুষ্ঠানে আইসিটি ডিভিশনের সচিব সুবীর কিশোর চৌধুরী এবং বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হোসনে আরা বেগম প্রদর্শনী আয়োজনের বিভিন্ন বিষয়ে সাংবাদিকদের অবহিত করেন। এছাড়া প্রদর্শনীর বিস্তারিত তুলে ধরেন বিসিএসের মহাসচিব ইঞ্জি. সুব্রত সরকার।
আয়োজকদের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, প্রতিদিন সকাল ১০ টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত। সবার জন্য উন্মুক্ত থাকলেও মেলায় প্রবেশের জন্য অনলাইন নিবন্ধন বা স্পট নিবন্ধন করতে হবে। এর জন্য মেলায় থাকবে নিবন্ধন বুথ। এ ছাড়া নিবন্ধনের ওয়েবসাইট (www.ictexpo.com.bd) থেকে নিবন্ধন করা যাবে। নিবন্ধন করলে কিউআর কোডসহ ভিজিটর কার্ড ও উপহার পাবেন দর্শকেরা।

ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নের অংশ হিসেবেই এ আয়োজন। যেসব অধুনা প্রযুক্তি ও ধারণা তথ্যপ্রযুক্তির প্রকৃতি ও ব্যবহার অবিশ্বাস্য গতিতে বদলে দিচ্ছে সেসব ক্ষেত্রে বাংলাদেশ কতটুকু এগুতো পেরেছে, আমাদের সক্ষমতা ও দক্ষতা কী— তা উপস্থাপন করা হবে এ প্রদর্শনীতে।  বিশেষ করে হার্ডওয়ার, ম্যানুফ্যাকচারিং ও গবেষণা খাতের সম্ভাবনা, কর্মপ্রচেষ্টা ও রূপকল্প তুলে ধরা হবে এতে। উপস্থাপন করা হবে হাই-টেক পার্ক এবং তথ্যপ্রযুক্তির উত্পাদন অবকাঠামোর অগ্রগতিও। জনসচেতনতা সৃষ্টি, তথ্যপ্রযুক্তি খাতে বিনিয়োগ ও বাণিজ্যবান্ধব পরিবেশ তৈরি, তরুণদের অংশগ্র্রহণ বাড়ানো, কর্মসংস্থান সৃষ্টি, বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের পথ ও উদ্যোক্তা তৈরি করতে সহায়ক হবে এ প্রদর্শনী।
১৮ তারিখ বুধবার বেলা ১১টায় মেলা উদ্বোধন করবেন পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তাফা কামাল। বিশেষ অতিথি থাকবেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এমপি, সংসদীয় কমিটির চেয়ারম্যান ইমরান আহমেদ এমপি প্রমুখ।

এবারের মেলায় আটটি দেশ থেকে তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবসায়ী, প্রতিনিধি, স্পিকার অংশ নিচ্ছেন। তাঁরা বিভিন্ন দেশীয় প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে বিটুবিতে অংশ নেবেন। এতে দেশের প্রযুক্তি খাতের সম্ভাবনা আরও বাড়বে।

মেলায় গোল্ড স্পন্সর হিসেবে থাকছে সুপরিচিত প্রযুক্তি ব্র্যান্ড এইচপি, টিপিলিংক; সিলভার স্পন্সর হিসেবে অংশগ্রহণ করছে ডাহুয়া টেকনোলজি। বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রের প্রায় ৬ হাজার ৫০০ বর্গমিটার এলাকা জুড়ে এ প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হবে।  দেশীয় ও আন্তর্জাতিক শতাধিক তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান, বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগ প্রদর্শনীতে অংশ নিচ্ছে। তথ্যপ্রযুক্তির নতুন সব পণ্য, সেবা, জীবনশৈলী ও ধারণা উপস্থাপন করবে এসব প্রতিষ্ঠান। ১৩২টি প্যাভিলিয়ন ও স্টলে তা প্রদর্শন করা হবে।
প্রদর্শনীতে আরও থাকছে লোকাল ম্যানুফ্যাকচারাস ফোরাম, গেমিং, সেলফি, কুইজ ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, মিট দ্যা লিডারস, লাইভ ইভেন্ট, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, বিনামূল্যে প্রবেশ ও ইন্টারনেট, ডিজিটাল সেবা ইত্যাদি। তথ্যপ্রযুক্তি খাতে বিশেষ অবদানের জন্য প্রদর্শনী উপলক্ষে বিভিন্ন অ্যাওয়ার্ড ও সম্মাননা দেয়া হবে। প্রদর্শনী চলাকালে মেলা প্রাঙ্গনে ভবিষ্যতের তথ্যপ্রযুক্তি ও বাংলাদেশ প্রসঙ্গে কয়েকটি সেমিনার অনুষ্ঠিত হবে।

প্রদর্শনীর বিস্তারিত থাকছে এক্সক্লুসিভ ওয়েব পোর্টাল www.ictexpo.com.bd-তে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকেও (fb/BangladeshICTexpo) প্রদর্শনী নিয়ে থাকছে নানা আয়োজন।