মঙ্গলবার ১৬ জানুয়ারি, ২০১৮, রাত ১১:৪৭

হাত-পা ভেঙে প্রধান শিক্ষককে পুলিশে দিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান!

Published : 2017-03-28 18:07:00
ঝালকাঠি সদর উপজেলার কীর্তিপাশা ইউনিয়নের গোবিন্দ ধবল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মিজানুর রহমানকে পিটিয়ে হাত-পা ভেঙে দিয়েছেন স্থানীয় ইউপি সদস্য ও তার সহযোগী লোকেরা। এ ঘটনায় আহত হয়েছে আরও দুই নারী সহ আরো তিন জন।

আহতরা হচ্ছেন গোবিন্দ ধবল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আ. লতিফ মিয়া (৫৮), কীত্তিপাশা বাজারের ব্যবসায়ী উত্তম দাস(৪৭), তার বোন রীনা দাস (৩৫) ও ভাইয়ের বউ আঞ্জনা দাস(২৫)।

জেলার সদর উপজেলা চেয়ারম্যান সুলতান হোসেন খান ও তার সহযোগীরা এই হামলা চালিয়েছে বলে জানা গেছে।

তবে উপজেলা চেয়ারম্যান সুলতান হোসেনের দাবী, তাকে হত্যার হুমকি দেওয়াতে ক্ষুব্ধ সমর্থকরা এ ঘটনা ঘটিয়েছে। পরে এলাকাবাসী তাদেরকে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে।

তাদেরকে ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে পাঠানো হলে প্রধান শিক্ষক আ. লতিফ মিয়া এবং ব্যবসায়ী উত্তম দাসকে বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হয়।

মঙ্গলবার (২৮ মার্চ) রাত ১০ টার দিকে কীর্তিপাশা এলাকায় সদর উপজেলা চেয়ারম্যান সুলতান হোসেন খান তার দলবল নিয়ে উত্তম দাসের ঘর থেকে প্রধান শিক্ষক লতিফ মিয়াকে টেনে হিচঁড়ে বের করে হকিস্টিক দিয়ে বেড়ধক মারধর করতে থাকে। এসময় তাকে রক্ষা করতে এসে মারপিটে অন্যরা আহত হয়।

মারপিটের এক পর্যায়ে উপজেলা চেয়ারম্যানের গাড়িতে তাদেরকে ঝালকাঠি থানায় নিয়ে আসা হয়। সেখান থেকে থানা পুলিশ হাসপাতালে পাঠায়।

এদিকে ওই প্রধান শিক্ষকের দাবি ম্যানেজিং কমিটি গঠন নিয়ে দ্বন্দ্বের জের হিসেবে তাদের উপর হামলা ও মারধর করা হয় বলে।