মঙ্গলবার ২৩ জানুয়ারি, ২০১৮, রাত ০২:২৭

রৌমারীতে মাদক বিরোধী অভিযান, মাদকব্যবসায়ীসহ ৬৪ অপরাধী আটক

Published : 2017-10-02 19:52:00
রৌমারী সংবাদদাতা : রৌমারী থানার মাদক বিরোধী অভিযানে সেপ্টেম্বর মাসে মাদকব্যবসায়ীসহ ৬৪ অপরাধীকে আটক করেছে পুলিশ। সেই সাথে বিপুল পরিমাণ গাজা, ফেন্সিডিল, ইয়াবা ও ভারতীয় বিভিন্ন প্রকার মদ আটক করা হয়। মাদকব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে ১৭টি নিয়মিত মামলা করা হয়েছে। যাদের অধিকাংশরাই রয়েছে জেলহাজতে।

এলাকাবাসী জানান, দীর্ঘদিন ধরে এসব মাদকব্যবসায়ী রৌমারীতে মাদকব্যবসাসহ নানা অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে রয়েছে। বিশেষ করে মোটরসাইকেল চুরি ও জুয়া আসর বসিয়ে নিত্যদিন পকেট কাটছে সাধারণ মানুষের। সেই সাথে উঠতি বয়সি শিশু-কিশোর ও শিক্ষার্থীদের উদ্বুদ্ধ করে বিপদগামী করছে।

সন্ধ্যা হলেই উপজেলার অন্তত অর্ধশত পয়েন্টে মাদকসেবী ও মাদকব্যবসায়ীদের তাণ্ডবে পথ চলাই দায় হতো সাধারণ মানুষের। সে চিত্র এখন নেই। অনেকটাই সাভাবিক হয়ে এসেছে এলাকার পরিবেশ-পরিস্থিতি। যারা পুলিশের হাতে ধরা পড়েছে তারা রয়েছে জেলহাজতে। আর যারা ধরা পড়েনি তারা ঢাকা কিংবা কোন বিভাগীয় শহরে রিকশা চালনাসহ দিনমজুরী করছে।

থানা সূত্রে জানা যায়, গত ৫ থেকে ২৯ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ২৪জন মাদকব্যবসায়ীকে আটক করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে করা হয়েছে নিয়মিত মামলা। অন্যদিকে মোটকসাইকেল সিন্ডিকেটের সক্রিয় সদস্যসহ নানা মামলায় ওয়ারেন্টের ৪৪জন অপরাধীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এছাড়াও ৮২ কেজি গাজা, ৫৯ বোতল ভারতীয় মদ, ১৫৭ পিচ ইয়াবা ও ৪ বোতল ফেন্সিডিল আটক করা হয়েছে।

কুড়িগ্রাম-৪ আসনের এমপি রুহুল আমিন জানান, রৌমারী থানায় নতুন ওসি জাহাঙ্গীর আলম যোগদানের পর থেকে গোটা উপজেলায় মাদক বিরোধী অভিযান চালানো হচ্ছে। এতে মাদকদ্রব্য ও মাদকব্যবসায়ীরা গ্রেফতার হওয়ায় এলাকার শান্তি শৃক্সখলা ও পরিবেশ স্বাভাবিক হয়ে আসছে। এ অভিযান অব্যাহত থাকলে ভবিষ্যৎ প্রজন্ম মাদক থেকে বেরিয়ে আসবে বলে আমার বিশ্বাস।

এ বিষয়ে রৌমারী থানায় সদ্য যোগদানকারী অফিসার ইনচার্জ জাহাঙ্গীর আলম জানান, এলাকাবাসী যেভাবে আমাদের সহযোগিতা করছে এবং আগামিতে যদি এমন সহযোগিতা করে তাহলে রৌমারী থেকে মাদকের মূলোৎপাটন খুব সহজতর হবে।

তবে নির্বিঘ্ন যোগাযোগ ব্যবস্থার কারণে এখনও প্রত্যন্ত কিছু এলাকায় অভিযান পরিচালনা করা সম্ভব হচ্ছে না। বিষয়টি নিয়ে আমাদের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করা হচ্ছে কিভাবে এসব এলাকায় অভিযান পরিচালনা করা যায়। আমাদের এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।