মঙ্গলবার ১৬ জানুয়ারি, ২০১৮, বিকাল ০৩:৪৫

সেরা স্টার্টআপের খোঁজে সিডস্টারস ওয়ার্ল্ড ঢাকা

Published : 2017-09-22 16:15:00
বৈশ্বিক প্রতিযোগিতার অংশ হিসেবে দেশ থেকে তরুণ স্টার্টআপদের উদ্ভাবনী ধারণা খুঁজতে আবারও বসছে সিডস্টারস ওয়ার্ল্ড ঢাকার আসর। আগামীকাল ২৩ সেপ্টেম্বর গ্রামীণফোনের প্রধান কার্যালয় জিপি হাউজে দেশের সেরা তিন উদ্ভাবনী স্টার্টআপকে খুঁজে নেবে সিডস্টারস ওয়ার্ল্ড কর্তৃপক্ষ। বিচারকরদের সামনে উপস্থাপণ করা ধারণা থেকে তাদের বেছে নেওয়া হবে। এরপর তাদের ধারণাকে সম্প্রসারণ করতে আঞ্চলিক পর্যায়ে ব্যাংককে অনুষ্ঠিতব্য সিডস্টারস এশিয়ার সামিটে নেওয়া হবে। সেখানে নিজেদের ধারণা উপস্থাপন শেষে আরও পরিশীলিত করার পর তাদের নেওয়া হবে চূড়ান্ত আসর সুইজারল্যান্ডের সিডস্টারস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতায়।

সুইজারল্যান্ডের প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে স্টার্টআপরা আবারও তাদের উদ্ভাবনী ধারণা সুইচ ব্যাংক, সিলিকন ভ্যালির ভেঞ্চার ক্যাপিটাল ফার্মসহ কর্পোরেট প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিদের সামনে উপস্থাপন করবেন। যেখানে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে প্রায় ৭৫ স্টার্টআপ অংশ নেবে। সেখানে বিজয়ী হলে বিনিয়োগ হিসেবে সর্বোচ্চ ১০ লাখ মার্কিন ডলার পুরস্কার জেতার সুযোগ থাকছে।

সম্প্রতি রাজধানীর কারওয়ান বাজারে জনতা টাওয়ার সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কে এক সংবাদ সম্মেলনে সিডস্টারস ঢাকার আয়োজন নিয়ে বিস্তারিত জানান আয়োজকরা। সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, গত দুমাস থেকেই সিডস্টারস ঢাকার জন্য আবেদন গ্রহণ করছে কর্তৃপক্ষ। যা ২০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চলবে। ইতোমধ্যে ১২০টির বেশি স্টার্টআপ আবেদন করেছে। এই ঠিকানায় গিয়ে আবেদন করা যাবে।

প্রাথমিক আবেদন জমা নেওয়া শেষে তাদের নিয়ে একটি বাছাই পর্ব হবে রাজধানীর ইএমকে সেন্টারে। সেখান থেকে বাছাই আট স্টার্টআপ নিয়ে হবে দেশের চূড়ান্ত আসর। আর চূড়ান্ত আসরে বিচারকরদের সামনে পাঁচ মিনিটে ইংরেজিতে স্টার্টআপদের ধারণা উপস্থাপন করতে হবে।

তবে শর্ত হিসেবে যেসব স্টার্টআপ দুই বছরের কম বয়সী এবং এখন পর্যন্ত যারা ৫০ হাজার মার্কিন ডলারের কম আর্থিক অনুদান সংগ্রহ করতে পেরেছে তারাই ‘সিডস্টারস ঢাকা ২০১৭’র জন্য ধারণা উপস্থানে নির্বাচিত হবেন।

সিডস্টারস ওয়ার্ল্ডের এশিয়া রিজিওনাল অ্যাসোসিয়েট আদ্রিয়ানা কলিনি বলেন, সিডস্টারস ওয়ার্ল্ড নতুন প্রজন্মের উদ্ভাবক ও উদ্যোক্তাদের সঙ্গে বিনিয়োগকারীদের সংযোগ স্থাপনের প্লাটফর্ম। এটা সিলিকন ভ্যালি এবং পশ্চিম ইউরোপের স্পটলাইটকে এখন বাংলাদেশে নিয়ে এসেছে। একানকার ইকোসিস্টেমের সঙ্গে আমরা সিডস্টারসদের নিয়ে নতুন কিছু করতে চাই।

সংবাদ সম্মেলন সঞ্চালনা করেন সিডস্টারস বাংলাদেশের কান্ট্রি অ্যাম্বাসেডর তানভীর সৌরভ। আরও উপস্থিত ছিলেন সিডস্টারস ওয়ার্ল্ডের এশিয়া অ্যাসোসিয়েট ওজি কেলা, গ্রামীণফোনের হেড অব ট্রান্সফরমেশন কাজী মাহবুব হাসান, সিডস্টারস ঢাকার পৃষ্ঠপোষক প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা।

সহযোগিতায় রয়েছে, জিপি অ্যাকসেলারেটর, লঙ্কা বাংলা ফাইন্যান্স, তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগ, জেনেক্স ইনফোসিস, আমরা টেকনোলজিস, ইএমকে সেন্টার, বেটারস্টোরিজ, সিভিসিএফএল, সোচিয়ান।