শুক্রবার ১৯ জানুয়ারি, ২০১৮, সকাল ০৯:৫৮

পাচার চক্রের ফাঁদে শিক্ষার্থী: দেশে শিক্ষা ও কাজের সুযোগ বাড়াতে হবে

Published : 2017-08-15 22:33:00
মালয়েশিয়ায় উচ্চশিক্ষা গ্রহণের প্রলোভন দেখিয়ে প্রতারণার ফাঁদে ফেলা হচ্ছে বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের। সে দেশে কলেজে ভর্তি করানোর নামে তাদের কাছ থেকে হাতিয়ে নেওয়া হচ্ছে লাখ লাখ টাকা। সে দেশের অখ্যাত কিছু বেসরকারি কলেজ ও তাদের দালালদের সঙ্গে এদেশের কিছু দালাল-প্রতারক চক্র মিলে দেশের শিক্ষার্থীদের সর্বনাশ করছে।
মালয়েশীয় সংবাদ মাধ্যম দ্য স্টারে প্রকাশিত এক অনুসন্ধানী প্রতিবেদনে জানা গেছে, প্রতারণার খপ্পরে পড়া ওইসব বাংলাদেশি শিক্ষার্থী মালয়েশিয়ায় গিয়ে মুখোমুখি হচ্ছে কঠিন পরিস্থিতির। দেশটিতে পৌঁছানোর পর তারা টের পায় স্বপ্নভঙ্গ হয়েছে তাদের। উপলব্ধি করে শিক্ষার্থী পাচার বাণিজ্যের শিকার হয়েছে তারা। আর পরিস্থিতি এমনই দাঁড়ায় যে, মানবেতর পরিবেশে অবৈধভাবে কাজ করা ছাড়া তাদের আর কোনো উপায় থাকে না।
নিরক্ষরমুক্ত বাংলাদেশ গড়তে সরকারের আন্তরিক প্রচেষ্টা লক্ষণীয়। তবে একই সঙ্গে আমরা লক্ষ করেছি, শিক্ষার হার বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে দেশে শিক্ষিত বেকারের সংখ্যা আশঙ্কাজনক হারে বাড়ছে। আর এটাকে সুযোগ হিসেবে কাজে লাগিয়ে দেশি-বিদেশি দালালচক্র কোনো কোনো পরিবারকে যেমন নিঃস্ব করে দিচ্ছে, তেমনি ধূলিসাত্ করে দিচ্ছে কিছু তরুণের স্বপ্ন। উচ্চশিক্ষা ও কাজ দেওয়ার নামে দেশি-বিদেশি পাচারচক্র বাংলাদেশি তরুণ শিক্ষার্থীদের নিয়ে ছিনিমিনি খেলবে, এটা মেনে নেওয়া যায় না।
মালয়েশিয়াতে উচ্চশিক্ষা অর্জনের পাশাপাশি হাজার হাজার টাকা আয় করার সুযোগ, এমন বিজ্ঞাপন শহরের অলিগলি থেকে শুরু করে পত্রপত্রিকাতেও দেখা যায়। অথচ মালয়েশিয়াতে উচ্চশিক্ষার পাশাপাশি কাজ করার ক্ষেত্রে রাষ্ট্রীয় কোনো বিধিনিষেধ আছে কি না সে বিষয়ে খতিয়ে দেখা হচ্ছে না। এসব বিষয় দেখাশোনা করার জন্য সরকারের কিছু সংস্থা রয়েছে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ দায়িত্বশীলতার সঙ্গে কাজ করলে হাজার হাজার শিক্ষার্থীর জীবনে এই দুঃসহ যন্ত্রণা নেমে আসত না। অন্যদিকে বিদেশে শিক্ষা ও কাজ দেওয়ার নামে যেসব এজেন্সি বা প্রতিষ্ঠান তরুণ শিক্ষার্থীর সঙ্গে প্রতারণা করছে, সেগুলো বন্ধ করে দিতে হবে। প্রতারক চক্রের সঙ্গে জড়িতদের শনাক্ত করে কঠোর শাস্তির আওতায় আনতে হবে। প্রয়োজনে মালয়েশিয়া সরকারের সঙ্গে এ বিষয়ে আলোচনায় বসা যেতে পারে। যারা প্রতারণার শিকার হয়েছে, তাদের পুনর্বাসনের জন্য কার্যকর পদক্ষেপ দেখতে চাই।
মালয়েশিয়াতে শিক্ষা ও কাজের সন্ধানে গিয়ে যারা বিপদে পড়েছে, তারা শিক্ষিত। কেউ কেউ হয়তো না জেনে প্রতারকদের ফাঁদে পড়েছে, কেউবা আবার জীবিকার তাগিদে শিক্ষার নামে কাজের সন্ধানে মালয়েশিয়াতে পাড়ি জমিয়েছে। অথচ দেশের মাটিতে কাজের নিশ্চয়তা থাকলে এদের অনেকেই এই ফাঁদে পা দিত না। তাই বিদেশে উচ্চশিক্ষা ও কাজের আড়ালে শিক্ষিত বেকারদের পাচার হওয়া রোধ করতে তাদের জন্য দেশের মাটিতে পর্যাপ্ত কর্মস্থলের সুযোগ করে দিতে হবে।