মঙ্গলবার ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, রাত ১০:১৪

বিশ্বজিৎ হত্যা: হাইকোর্টের রায় ৬ আগস্ট

Published : 2017-07-17 23:12:00, Count : 89
নিজস্ব প্রতিবেদক: বহুল আলোচিত বিশ্বজিত্ দাস হত্যা মামলায় ডেথ রেফারেন্স ও আপিলের শুনানি শেষ হয়েছে। পরে আগামী ৬ আগস্ট রায়ের দিন ধার্য করা হয়। রাষ্ট্রপক্ষ ও আসামিপক্ষের যুক্তি উপস্থাপন শেষে গতকাল বিচারপতি মো. রুহুল কুদ্দুস ও বিচারপতি ভীষ্মদেব চক্রবর্তীর সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ দিন ধার্য করেন।
শুনানিতে রাষ্ট্রপক্ষে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম, ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল নজিবুর রহমান যুক্তি তুলে ধরেন। আসামিপক্ষে জ্যেষ্ঠ কৌঁসুলি মনসুরুল হক চৌধুরী, এসএম শাহজাহান, লুতফর রহমান মণ্ডল, সৈয়দ শাহ আলম শুনানি করেন। আর পলাতক আসামিদের পক্ষে ছিলেন মমতাজ বেগম।
রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলিরা বলেন, যেসব তথ্য-প্রমাণ ও পারিপার্শ্বিক উপাদান রয়েছে, তাতে আসামিদের সর্বোচ্চ সাজা হওয়াই কাম্য। আসামিপক্ষ দাবি করেছে, রাষ্ট্রপক্ষের সাক্ষ্যে গরমিল রয়েছে। এ জন্য আসামিরা খালাস পাবে। হাইকোর্টে গত ১৬ মে আপিল ও ডেথ রেফারেন্সের (মৃত্যুদণ্ডের অনুমোদন) ওপর শুনানি গ্রহণ শুরু হয়।
২০১৩ সালের ১৮ ডিসেম্বর দর্জি দোকানি বিশ্বজিত্ দাস হত্যা মামলায় ছাত্রলীগের ৮ জনকে মৃত্যুদণ্ড ও ১৩ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন ঢাকার চতুর্থ দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল। এ রায়ের এক সপ্তাহের মধ্যে বিশ্বজিত্ হত্যা মামলার ডেথ রেফারেন্সের নথি হাইকোর্টে আসে। পাশাপাশি ট্রাইব্যুনালের রায়ের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আপিল করে আসামিরা।
নিম্ন আদালতে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্তরা হল রফিকুল ইসলাম শাকিল, মাহফুজুর রহমান নাহিদ, এমদাদুল হক, জিএম রাশেদুজ্জামান, সাইফুল ইসলাম, কাইয়ুম মিঞা, রাজন তালুকদার ও মীর মো. নূরে আলম। এদের মধ্যে রাজন তালুকদার ও নূরে আলম পলাতক। যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্তরা হল এএইচএম কিবরিয়া, ইউনুস আলী, তারিক বিন জোহর, গোলাম মোস্তফা, আলাউদ্দিন, ওবায়দুল কাদের তাহসিন, ইমরান হোসেন, আজিজুর রহমান, আল-আমিন, রফিকুল ইসলাম, মনিরুল হক, মোশাররফ হোসেন ও কামরুল হাসান। এদের মধ্যে কিবরিয়া ও গোলাম মোস্তফা কারাগারে।

আরও খবর