শুক্রবার ১৯ জানুয়ারি, ২০১৮, সকাল ১০:০০

'আমিই অ্যাডলফ হিটলার' দাবি আর্জেন্টিনার বৃদ্ধের

Published : 2017-07-04 17:26:00, Updated : 2017-07-04 17:36:47

অনলাইন ডেস্ক : সম্প্রতি আর্জেন্তিনার এক বৃদ্ধ হারমান গুটেনবার্গ নিজেকে হিটলার বলে দাবি করেছেন। ১২৮ বছর বয়সী ওই বৃদ্ধের এই দাবি আর্জেন্টিনা এবং লাতিন আমেরিকার সংবাদমাধ্যমে ফলাও করে ছাপা হয়েছে। তবে, খবরটিতে বিশ্বাসযোগ্যতার অভাব থাকায় বিশ্বের খ্যাতনামা সংবাদমাধ্যমগুলি এ নিয়ে তেমন একটা উৎসাহ প্রকাশ করেনি। এমনকী ওই বৃদ্ধের স্ত্রীও তাঁর দাবি মানতে নারাজ। তিনি জানিয়েছেন, তাঁর স্বামী লঝাইমার’স রোগে আক্রান্ত হয়েই এ সব বলছেন।

সম্প্রতি গুটেনবার্গ দাবি করেন, তিনিই নাকি অ্যাডলফ হিটলার। কিন্তু, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে নাৎসি বাহিনীর পরাজয়ের পর ১৯৪৫ সালের ৩০ এপ্রিল হিটলার আত্মহত্যা করেছিলেন। ইতিহাস তেমনটাই বলে। তা হলে তিনি কী ভাবে আর্জেন্টিনায় এলেন? ওই বৃদ্ধের দাবি, ১৯৪৫ সালে পরাজয়ের পর তিনি আর্জেন্টিনায় চলে আসেন। আত্মগোপন করতে নিজের নামও বদলে নেন। শুধু তাই নয়, ‘জার্মান গুপ্তচর’রা নাকি তাঁর নামে পাসপোর্টও বানিয়ে দেয়। তবে, ওই বৃদ্ধের কোনও দাবির সপক্ষে একটিও তথ্যপ্রমাণ মেলেনি। ওই বৃদ্ধের আরও দাবি, দীর্ঘ ৭০ বছর ধরে তিনি যখন আত্মগোপন করেছিলেন, সেই সময়ে ইসরাইলের জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের গুপ্তচর হিসেবে কাজ করেছেন তিনি। তাঁর কাজ ছিল যুদ্ধপরাধী নাৎসি বাহিনীর শীর্ষ নেতাদের খুঁজে বের করা।

তবে ইতিহাসবিদদের একটা ছোট অংশ দাবি করেন, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে পরাজয়ের পর আর্জেন্টিনায় গা ঢাকা দিয়েছিলেন হিটলার। এই মতামতের পক্ষে একাধিক প্রমাণ এবং যুক্তি সামনে এনেছেন তাঁরা। গুটেনবার্গ যখন নিজেকে হিটলার বলে দাবি করে একের পর এক নানা দাবি, তথ্য সামনে আনছেন, তখন কিছুটা কাকতালীয় ভাবেই আর্জেন্টিনার বুয়েনোস আইরেসের একটি বাড়ির গুপ্ত কুঠুরি থেকে মিলেছে নাৎসিদের ব্যবহৃত জিনিসপত্রের ভাণ্ডার। এর ফলে আলোচনা আরো জোরদার হয়েছে। সূত্র: আনন্দবাজার